মেইন ম্যেনু

কিশোরগঞ্জে ভিক্ষুকদের সাথে মতবিনিময় করলেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব

কিশোরগঞ্জের পুর্নবাসিত ভিক্ষুকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ। শুক্রবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের মুসা মডেল দাখিল মাদরাসা মাঠে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন।

জেলার ভিক্ষুক মুক্ত উপজেলা কিশোরগঞ্জে অমর্যাদাকর পেশা ভিক্ষাবৃত্তি পরিহার করে জীবীকা নির্বাহের জন্য নানা কর্মসংস্থানে জড়িয়ে থাকা পুর্নবাসিত ভিক্ষুকদের মিলন মেলায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ জাকীর হোসেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ দিলোয়ার বখত, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. প্রশান্ত কুমার রায় এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বিরোধী দলীয় হুইপ আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী।

মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন ভিক্ষুক মুক্ত উপজেলা গড়ার উদ্যোক্তা কিশোরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) মোঃ সিদ্দিকুর রহমান এছাড়াও বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ ভিক্ষুকদের সরকারী ভাবে আরও সহযোগীতার আশ্বাস দিয়ে বলেন, ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে আপনারা যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন সারাদেশের জন্য কিশোরগঞ্জ উপজেলা মডেল। তিনি ভিক্ষুকদের গৃহনির্মাণ করে দেয়াসহ সরকারী ভাবে আরো সুযোগ সুবিধা প্রদানের আশ্বাস দেন।

ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের সুবিধাভোগী আনোয়ারা বেগম(৪৯) ও রহিমা বেগম(৫০) জানান, আমরা আর ভিক্ষা করতে কারো বাড়ি যাবো না কারণ লজ্জা লাগবে। ভিক্ষুক নয় এখন সাধারণ মানুষের মত বসবাস করতে চান আনোয়ারা ও রহিমা বেগম।

প্রসঙ্গত ৯৭৯জনকে চিহিৃত করে গত বছরের ৫জুলাই কিশোরগঞ্জ উপজেলা ভিক্ষুক মুক্ত ঘোষণা করা হয়। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৯৫১জন ভিক্ষুককে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করে নানা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেয়া হয়। এদের মধ্যে ৭১১জন ছাগল পালন, ৬৫জন গবাদী পশুপালন এবং ১৭৫জন বিভিন্ন ক্ষুদ্র ব্যবসায় নিজেদের নিয়োজিত রেখে জীবীকা নির্বাহ করছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান জানান, অমর্যাদার পেশা ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে আসার পর সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় পুর্নবাসিতদের মধ্যে ৫৯৯জনকে বয়স্ক ভাতা, ২০৯জনকে বিধবা ভাতা এবং ৫৩জনকে প্রতিবন্ধি ভাতা দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ভিক্ষাবৃত্তি ছাড়ার পর পুর্নবাসিত ভিক্ষুকরা এখন নানা কর্মসংস্থানে জড়িয়ে রয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই