মেইন ম্যেনু

কিশোরগঞ্জে ঝড়ে লাঙ্গল প্রেমিকদের লাঙ্গল উড়িয়ে গেছে

গত শনিবার দিবাগত রাত ৮টার সময় টর্নেডোর আঘাতে উড়ে গেছে রংপুর অঞ্চলের জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রতীক লাঙ্গল।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,উপজেলার মাগুড়া ইউনিয়নে জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের ছোট বোন (সংরক্ষিত সংসদ সদস্য) মেরিনা রহমানের শশুর বাড়ী এবং মেরিনা রহমানের স্বামী প্রয়াত সাবেক সংসদ সদস্য ড. আসাদুর রহমান ভেলুর জন্ম স্থান নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুড়া ইউনিয়নে।

সেই সূত্রে বলা যেতে পারে রংপুর যদি এরশাদের ঘাঁটি হয় তাহলে মাগুড়া ইউনিয়ন নিঃসন্দেহে এরশাদের উপঃঘাটি বললে কোন ভুল হবেনা। আর বর্তমান মহাজোট সরকারের জোটে থাকা জাতীয় পার্টির নীলফামারী – ৪ আসনের সংসদ সদস্য (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ) ও বিরোধীদলীয় হুইপের দায়িত্বে থাকা আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী নির্বাচিত হওয়ার ফলেও মাগুড়া ইউনিয়নের লাঙ্গল সমর্থকদের ইউনিয়ন অফিসের জন্য কোন প্রকার সাহায্য সহযোগীতা অত্র অফিসে আসে নাই।

বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা জাতীয়পার্টির সভাপতি রশিদুল ইসলাম’র বাড়ী কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুড়া ইউনিয়নে লাঙ্গল প্রেমিক এলাকায়। কিন্ত বাড়ীর পার্শ্বের দলীয় অফিস যদি অন্যের ঘাড়ের উপর ভর করে চলে তাহলে সাধারণ মানুষ যাবে কোথায়? তারপরেও মরার উপর দারুন খরা চেপে বসেছে প্রাকৃতিক বিপর্যয়। গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ৮টার সময় টর্নেডোর আঘাতে মাগুড়া ইউনিয়নের লাঙ্গল সমর্থকদের প্রিয় লাঙ্গল অফিসটির টিভি,ফ্রিজ,ফ্যান,চেয়ার,বেঞ্চ,ঘরের ঢেউটিন ও ৫৫হাজার টাকায় তৈরী করা লাঙ্গলসহ লন্ডভন্ড হয়ে গেছে।

তাদের অফিসটি লন্ডভন্ড হয়ে গেলে অফিস পরিচালনাকারী লাঙ্গল সমর্থক গোষ্ঠির সভাপতি আব্দুল মজিদ,শ্রী নিপিন চন্দ্র সরকার,জাদু মিয়া,শ্রী মতে চন্দ্র ও শাহিনুর রহমান সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরীকে বিষয়টি অবহিত করতে গেলে সংসদ সদস্য তাদের কোন কথা কর্ণপাত করেনি। ফলে হতাশ হয়ে ফিরে এসে মাগুড়া বাস ষ্ট্যান্ডে থাকা সাংবাদিকদের জানান,শওকত চৌধুরী কোন জাতীয়পার্টি করেন? আর যদি তিনি সত্যিকারের এরশাদের জাতীয়পার্টি করেন তাহলে জাতীয়পার্টির লাঙ্গল প্রেমিকদের লাঙ্গল অফিসটি দেখভাল করেন না কেন?






মন্তব্য চালু নেই