মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার খবর (২৩/৯/১৪)

বিয়ে করতে অস্বীকৃতি করায় প্রেমিকের ঘেরে প্রেমিকার আত্মহত্যা:
সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিক আসলাম গাজীর (৩৬) ঘেরের বাসায় গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে প্রেমিকা আসমা খাতুন (২২)। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের চাকলা গ্রামের ওই ঘেরের বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে।
স্থানীয়রা জানান, চাকলা গ্রামে উপজেলার শুভদ্রকাটি গ্রামের সুরাত আলী গাজীর ছেলে আসলাম গাজীর চাকলায় একটি মৎস্য ঘের ছিল। ঘেরে যাতায়াতের সুযোগে একই গ্রামের ইছাক আলীর মেয়ের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বেশ কিছুদিন ধরেই আসমা খাতুন বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিল প্রেমিক আসলামকে। কিন্তু বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানালে আসমা খাতুন সোমবার আসলামের বাড়িতে গিয়ে ওঠে এবং বিয়ে না করলে আত্মহত্যার হুমকি দেয়। ওই সময় আসলাম পারলে আত্মহত্যা কর গিয়ে.. বলে বাড়ি থেকে তাকে বের করে দেয়। এতে অপমানিত বোধ করে রাতে আসলামের ঘেরের বাসায় গিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় আসমা।
আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে ।

১২ লাখ টাকা মুল্যের তিন পিস সোনার বারসহ তিন চোরাকারবারী আটক:
সাতক্ষীরার সদর হাসপাতাল এলাকায় মঙ্গলবার বেলা এগারটার দিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১২ লাখ টাকা মুল্যের তিন পিস সোনার বারসহ তিন চোরাকারবারীকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো, মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর থানার কামু-া গ্রামের আবেদ আলী ছেলে সুমন ইসলাম,সাতক্ষীরার কামালনগর এলাকার মারুফ হোসেন ও আব্দুর রউফ।
সদও থানার ওসি গোলাম রহমান জানান,ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে তিনটি সোনার বার নিয়ে সুমন সাতক্ষীরায় আসে। পরে তার সাথে স্থানীয় দু’জন যোগ হয়। সীমান্তের দিকে যাওয়ার প্রস্তুতিকালে সদর হাসপাতাল এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। তিনটি সোনার বারের ওজন প্রায় ৩০ ভরি বলে ওসি জানান।

পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে দেনাদারের হামলায় আহত সুমনের মৃত্যু:
সাতক্ষীরায় গরু বেচার পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত সুমন কবীর চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। সোমবার রাত নয়টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কুশখালী ইউনিয়নের শিকড়ী গ্রামের হাসান আলীর ছেলে।
স্থানীয়রা জানান, রোববার বিকেলে সুমন গরু বিক্রির পাওনা টাকা চাইতে যান একই উপজেলার কুশখালী গ্রামের জাকিরের কাছে। এ সময় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে জাকির ও তার ভাই বাহারুলসহ কয়েকজন সুমনকে বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যায়ে বাশ দিয়ে সুমনের মাথায় সজোরে আঘাত করা হলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। সন্ধ্যায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে সোমবার সকালে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি গোলাম রহমান জানান,নিহতের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপারেশন থিয়েটারে ইনফেকসন আক্রান্ত হচ্ছে মায়েরা, তদন্ত কমিটি গঠন:
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগের অপারেশন থিয়েটারে ভয়াবহ ভাইরাস দেখা দিয়েছে। ভাইরাস আক্রান্ত অপরেশন থিয়েটারে অধিকাংশ প্রসুতির ক্ষত স্থানে ইনফেকশন দেখা দিয়েছে। কি কারনে ওটি’তে জীবানু ছড়িয়ে পড়েছে তা সঠিক করে বলতে পারেনি সংশ্লিষ্টরা। ভয়াবহ এ ঘটনায় পাঁচ সদস্য তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. সালেহ আহমেদ। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের রবিউল ইসলামের স্ত্রী মোছা. রেশমা খাতুনকে ১০ সেপ্টেম্বর সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগের অপারেশন থিয়েটারে সিজার করানো হয়। কিন্ত অপারেশন থিয়েটার ও সার্জারী যন্ত্রপাতিতে জীবানু থাকায় তার শরীরের ক্ষত স্থানটিতে ইনফেকশন দেখা দিয়েছে। সিজার করার প্রায় পক্ষকাল অতিবাহিত হলেও ক্ষত স্থানের আঠা জোড়া লাগেনি। ফলে সেখানে দগদগে ঘা হয়ে পুঁজ ও রক্ত নির্গত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রেশমা খাতুনের স্বামী রবিউল ইসলাম। তিনি বলেন, গর্ভবর্তী মায়েদের যে ওটি’তে সিজার করা হয় সেটিতে জীবানু থাকবে বা ভাইরাসে আক্রান্ত হবে এটা খুবই অমানবিক বিষয়।
শহরের ইটাগাছা এলাকার বাসিন্দা সংবাদকর্মী মমতাজ আহমেদ বাপী জানান, গত ১৫ দিন পার হয়ে গেছে তার মেয়ে মুস্তারি বানু সিজার হয়েছেন সদর হাসপাতালে। কিন্ত এখনও পর্যন্ত ক্ষত স্থানটি জোড়া লাগেনি উপরন্ত সেখানে ইনফেকশন দেখা দেয়ায় ঘা শুকাচ্ছে না। ফলে তার মেয়ে নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বলে জানান। এখনও হাসপাতাল ছাড়তে পারেনি তার মেয়ে। তিনি আরো বলেন, চলতি মাসে সদর হাসপাতালে যত গর্ভবতীতে সিজার করা হয়েছে তাদের অধিকাংশেরই একই অবস্থা।
এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. সালেহ আহমেদ বলেন, বিষয়টি তিনিও জেনেছেন। কেন এমন ঘটনা ঘটছে তার কারন অনুসন্ধানে হাসপাতালের গাইনী বিভাগের প্রধান ডা. রহিমা বেগমকে প্রধান করে পাঁচ সদস্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। উক্ত কমিটি ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন। তিনি বলেন, কেবলমাত্র ওটিতে ভাইরাস সরাসরি এমন বলা যাবে না। টেকনিক্যাল সমস্যার কারনেও এমন হতে পারে। তার পরও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

বজ্রপাতে কলেজ ছাত্র নিহত:
আশাশুনি উপজেলার বজ্রপাতে এক কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছে। নিহত কলেজ ছাত্রের নাম মোখলেছুর রহমান (২৭)। সে উপজেলার লাঙ্গলদাড়িয়া গ্রামের মাষ্টার আব্দুর রউফ মল্লিকের ছেলে ও সাতক্ষীরা সরকারী কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র। সোমবার দুপুরে লাঙ্গলদাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মোখলেছুর দুপুরে তার বাড়ির পাশের একটি মৎস্য ঘেরের কুড়ি ঘরে অবস্থান করছিল। এ সময় হঠাৎ সেখানে বজ্রপাত ঘটলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। পরে স্থানীয়রা তার মৃত দেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসেন।
আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

বিএনপি নেতা পৌর কাউন্সিলর শাহীনসহ জামায়াত-বিএনপির ১২ নেতা-কর্মী আটক:
বিএনপি’র ডাকা দেশব্যাপি হরতালে যেকোন ধরণের নাশকতা এড়াতে সাতক্ষীরা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর মাসুম বিল্লাহ শাহীনসহ জামায়াত-বিএনপির ১২ নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার রাতভর জেলা শহরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে- বিএনপির ৫ জন ও জামায়াতের ৭ জন নেতা-কর্মী রয়েছে। জেলা পুলিশের তথ্য কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে হরতালে সহিংসতা সৃষ্টির পরিকল্পনার অভিযোগ রয়েছে। হরতালে নাশকতা এড়াতে পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করেছে। যেকোন ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে, সোমবার হরতালের সমর্থনে জেলার কোথাও কোন পিকেটিং ও মিছিল-সমাবেশের খবর পাওয়া যায়নি। হরতালে সাতক্ষীরা থেকে দূরপাল্ল¬ার কোন পরিবহন ছেড়ে না গেলেও জেলার অভ্যন্তরীণ সড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। শহরের দোকানপাটও স্বাভাবিক নিয়মে খুলেছে। নাশকতা এড়াতে জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবের সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর টহল জোরদার আছে।






মন্তব্য চালু নেই