মেইন ম্যেনু

দেবহাটা (সাতক্ষীরা) সংবাদ (১৩/৯/১৪)

## দেবহাটায় চিংড়ী চাষ ও পুষ্টি বিষয়ক প্রশিক্ষন:
সাতক্ষীরার দেবহাটায় ইউ.এস.এইড এর অর্থায়নে ওয়ার্ল্ডফিস সেন্টার কর্তৃক পরিচালিত একুয়াকালচার ফর ইনকাম এন্ড নিউট্রিশান (এ.আই.এন) প্রকল্পের পক্ষ থেকে চিংড়ী চাষ ব্যবস্থাপনা ও পুষ্টি বিষয়ে এক প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশিক্ষনে মোট ২০ জন মহিলা চিংড়ি ও সবজী চাষী উপস্থিত ছিলেন। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪ উপজেলর সদরের হরিতলা দূর্গা মন্দির চত্বরে প্রশিক্ষনের বিষয় ছিল খাদ্য ও পুষ্টি আলোচনা ও পুষ্টিকর রেসিপি। উক্ত প্রশিক্ষনে সভাপতিত্ব করেন কাঞ্চনা রানী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলার ওয়ার্ল্ড ফিসের কারিগরী বিশেষজ্ঞ আজহারুল হক (পলাশ)। বিশেষ অতিথি ছিলেন দেবহাটা ও কালীগঞ্জ উপজেলার সুপার ভাইজার নাজমুল হুসাইন। সম্প্রসারন সহায়ক জাহাঙ্গীর হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তারা তাদের বক্তব্যে অল্প খরচে সবজী ও চিংড়ী চাষ করে অধিক লাভবান হওয়ার জন্য সকলকে উৎসাহিত করার পাশাপাশি পুষ্টি বিষয়ক যেমন খাদ্য ও পুষ্টি, আয়রন, ভিটামিন, গর্ভবতী মায়েদের সেবা ও যতœ, দুদ্ধ দানকারী মায়ের সেবা ও যতœ এবং শিশুর বাড়তি খাবার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন। শেষে চাষীদের টিপি ট্যাপের মাধ্যমে আদর্শ হাত ধোয়ার পদ্ধতি শিখানো হয়।

## দেবহাটার খড়িডাঙ্গায় চাষীদের মাঝে বাগদা চিংড়ি ও পুষ্টি বিষয়ক প্রশিক্ষন:
ইউ.এস.এইড এর অর্থায়নে ওয়ার্ল্ডফিস সেন্টার কর্তৃক পরিচালিত একুয়াকালচার ফর ইনকাম এন্ড নিউট্রিশান (এ.আই.এন) প্রকল্পের দেবহাটা উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নের খড়িডাঙ্গা গ্রামে সম্প্রসারন সহায়ক প্রদীপ চক্রবর্ত্তীর তত্ত্বাবধানে গতকাল বিকালে বাগদা চিংড়ির নিয়মিত পাক্ষিক প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে উক্ত গ্রামের নারী ও পুরুষ চাষীসহ মোট ২৫ জন চিংড়ি চাষী উপস্থিত ছিলেন। গতকালের প্রশিক্ষনের বিষয় ছিল খাদ্য ও পুষ্টি আলোচনা ও পুষ্টিকর রেসিপি। এ প্রশিক্ষনে চাষীরা নিজের ও পারিবারিক পুষ্টি সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করবে। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে চাষীরা ঘের মজুদ পূর্ব ব্যবস্থাপনা, নার্সারী করে মাছ ছাড়ার গুরুত্ব, খাদ্য প্রয়োগের সুফল, পিসিআর পরীক্ষিত পোনা ছাড়ার উপকারীতা, তলার পঁচাকাদার ধরন ও করনীয় সহ পুষ্টি সচেতনতা ও বসত বাড়ীর আঙ্গিনায় সব্জিচাষসহ নানাবিধ বিষয়ে অবগত হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলার সর্ব দক্ষিন-পূর্বকোনের ৪টি উপজেলাতে ২০১২ সাল থেকে এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। প্রচলিত পদ্ধতিতে বাগদা চিংড়ি চাষে অভ্যস্ত চাষীদের আধুনিক পদ্ধতিতে বাগদা উৎপাদনের পাশাপাশি, ঘের ও বসতবাড়ীর আঙিনায় সব্জি উৎপাদন করে পারিবারিক ও সামাজিক পুস্টি নিশ্চিতের পাশাপাশি অধিক লাভবান হওয়ার জন্য সকলকে উৎসাহিত করা এবং পুষ্টি বিষয়ক যেমন খাদ্য ও পুষ্টি, আয়রন, ভিটামিন, গর্ভবতী মায়েদের সেবা ও যতœ, দুদ্ধ দানকারী মায়ের সেবা ও যতœ এবং শিশুর বাড়তি খাবার সম্পর্কে বক্তারা বিস্তারিত আলোচনা করেন।



« (পূর্বের সংবাদ)
(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই