মেইন ম্যেনু

খালের অবৈধ পাটা অপসারণ ও মাছের বৈচিত্র্য সুরক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার সোনামুগারী খালের অবৈধ পাটা অপসারণ ও মাছের বৈচিত্র্য সুরক্ষার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
রোববার বেলা ১২টায় সোনামুরাগী জেলে কল্যাণ সমিতি ও শ্যামনগর উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটি খাল পাড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।
শ্যামনগর উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন সোনামুগারী জেলে কল্যাণ সমিতির গঙ্গারাম ধীবর, সদস্য রেনুকা রানী ধীবর, বিমল চন্দ্র মন্ডল, উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কুমুদ রঞ্জন গায়েন, স্থানীয় প্রবীণ জেলে তাতীরাম ও পার্বতী ধীবর।
বক্তারা বলেন, স্থানীয় প্রভাবশালীরা খালে পাটা দেওয়ায় খালে মাছের বংশ ধ্বংস হচ্ছে। এক সময় স্থানীয় ধীবর জনগোষ্ঠী এই খালে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতো। ধীবর জনগোষ্ঠীর পূজা-পার্বণ ও গ্রামের অসহায় পরিবারের চিকিৎসা, মৃত ব্যক্তির সৎকার, বিয়েসহ নানা প্রয়োজনে খালের মাছ ধরে সমস্যার সমাধান করা হত। কিন্তু কল্যাণপুর থেকে সোনামুগারী খালের বিভিন্ন স্থানে পাটা দেওয়ায় এখন সব স্মৃতি।
জেলে তাতীরাম ও পার্বতী ধীবর বলেন, আগে এই খালে মাছ ধরে ৫/৭টি পেট চালাতাম। এখন সারাদিনে এক মুঠো মাছ পাওয়া যায় না। সিপ দিয়ে একটি পরিবার সারাবছর মাছের চাহিদা পূরণ করত। এখন তা সম্ভব হচ্ছে না। পূর্বে সোনামুগারী খালে বোয়াল, শোল, গজাল, ভেটকি, কই, বাইন প্রভূতি মাছ পাওয়া যেত। বর্তমানে খালের অব্যবস্থাপনায় মাছের সাথে সাথে আমাদের জীবনের সুখ-শান্তি হারিয়ে গেছে।
মানববন্ধন থেকে কর্তৃপক্ষের কাছে অতিদ্রুত খালের অবৈধ পাটা অপসারণ, মাছের প্রজাতি রক্ষায় নেট জাল, বেড জাল, ছেকনি ও ঘাই জাল টানা বন্ধসহ খালের উপর ধীবর ও অন্যান্য জনগোষ্ঠীর অধিকার ও নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানানো হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই