মেইন ম্যেনু

মুসলিম গবেষকদল আবিষ্কার করল ২০৩ কি.মি বেগে চলা স্পিডবোট

সাগরে ২০৩ কি.মি বেগে চলতে সক্ষম স্পিডবোট আবিষ্কার হয়েছে। এই স্পিডবোট মূলত নৌবাহিনীর ব্যবহার করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি ঘণ্টায় ১১০ নট বা ২০৩ কিলোমিটার বেগে চলতে সক্ষম উচ্চ গতির স্পিডবোটের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে ইরানের নৌবাহিনীর একদল বিশেষ মুসলমান গবেষকরা।

সম্পর্ন নিজস্ব প্রযুক্তিতে এই উচ্চ গতির স্পিডবোট তৈরি করেছে বলে জানিয়েছেন আইআরজিসি’র নৌশাখার কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আলী ফাদাভি। তেহরানে স্পিডবোট নির্মাণ ও স্পিডবোটের উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় কনফারেন্সে এ কথা জানান তিনি।

এ ছাড়া, যুদ্ধজাহাজ বিধ্বংসী ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র এবং কামান স্পিডবোটে আগে বসানো সম্ভব ছিল না উল্লেখ বলে করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, ইরানি বিশেষজ্ঞরা স্পিডবোটে এই দুই ব্যবস্থা স্থাপন করতে পেরেছেন।

ঘণ্টায় ১২০ নট বা ২২২ কিলোমিটার বেগে চলতে সক্ষম সামরিক জলযানের পরীক্ষা এবং নকশা প্রণয়নের কাজ এখন আইআরজিসি’র নৌ গবেষণাগারেই করা হয়। আগে এ ধরনের পরীক্ষা ইরানের বাইরে করতে হতো বলে জানান তিনি।

আইআরজিসি’র নৌশাখার কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আলী ফাদাভি ঘোষণা করেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ইরান ঘণ্টায় ৮০ নট বা ১৪৮ কিলোমিটার বেগে চলতে সক্ষম স্পিডবোটের গণ-উৎপাদন শুরু করবে। এ সব স্পিডবোটে ১০০ কিলোমিটার বা ৬২ মাইলের মধ্যে অবস্থিত শত্রু লক্ষ্যবস্তু ধ্বংসের উপযোগী ক্ষেপণাস্ত্র বসানো থাকবে।

সূত্র: রেডিও তেহরান



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই