মেইন ম্যেনু

নির্বাচনকে ঘিরে রাজধানীতে বেড়েছে অস্ত্রের চাহিদা

সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজধানীতে অস্ত্রের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় অস্ত্র ব্যবসায়ীরা নতুন করে সংঘবদ্ধ হয়ে অস্ত্র বেচা-কেনা শুরু করেছে। মঙ্গলবার রাতে দুটি পৃথক অভিযানে পাঁচজন অস্ত্র ব্যবসায়ীকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। সেই সঙ্গে ২০ রাউন্ড গুলি ও একটি চাপাতিও উদ্ধার করা হয়।

গোয়েন্দা ও অপরাধতথ্য বিভাগের (দক্ষিণ) উপপুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়, অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. আহসান হাবীবের নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

বুধবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, দুজন কাউন্সিলর প্রার্থীকে হত্যার পরিকল্পনা করছিলেন তারা। এজন্যই এই অস্ত্রগুলো সরবরাহ করা হয়েছিল।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘এখন থেকে অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে।’

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ীর গোলাপবাগ এলাকায় চাপাইনবাবগঞ্জ জেলা থেকে অস্ত্র বিক্রয়ের জন্য ঢাকায় আসা এমদাদ হোসেন (৩৬), দেলোয়ার হোসেন (২৪) ও চাঁন মিয়াকে (৪৫) গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের হেফাজত থেকে দুটি অস্ত্র, তিনটি ম্যাগাজিন ও ১২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

ওই তিনজনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অপর এক অভিযানে বুধবার ভোরের দিকে কোতোয়ালী এলাকার ওয়াইজঘাট এলাকা থেকে পুরান ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ডাকাত সাগর গ্রুপের দলনেতা সাগর হোসেন জুলহাস ওরফে সিফাত ওরফে দীপু ওরফে ডাকাত সাগর (২৪) এবং তার এক সহযোগী আলামিন আকাশকে (২৩) গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের হেফাজত থেকে একটি অস্ত্র, আট রাউন্ড গুলি, দুটি ম্যাগাজিন ও একটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর নিজেকে পুরাতন ঢাকার নব্যগঠিত ডাকাত দল সাগর গ্রুপের দলনেতা হিসেবে স্বীকার করেন। তার বিরুদ্ধে পুরাতন ঢাকা এলাকায় হত্যা, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি প্রভৃতি অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে আটটি মামলা রয়েছে। অপরদিকে গ্রেফতারকৃত অপর তিনজন অস্ত্র ব্যবসায়ী সাগর গ্রুপসহ অন্যান্য গ্রুপকে অস্ত্র সরবরাহ করে আসছিল বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে। তাদের বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী এবং কোতোয়ালী থানায় তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই