মেইন ম্যেনু

ধর্ষণের পর কুঁয়ায় নিক্ষেপ…

ভারতের রাজস্থান রাজ্যের ভিলওয়ারা শহরে ১৭ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার উদ্দেশ্যে কুঁয়ায় ফেলে দিয়েছিল পাষণ্ড ধর্ষক। কিন্তু ভাগ্যগুণে মেয়েটি বেঁচে যায়। দীর্ঘ ১৫ ঘণ্টা পর তাকে কুঁয়া থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। তিনি পলাতক রয়েছেন।

এনডিটিভিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনার দিন ক্ষেতে কাজ করতে যাচ্ছিল ওই কিশোরী। পথে তারই এক প্রতিবেশী পুরুষ তাকে জোর করে ধর্ষণ করেন। এরপর নিজের অপরাধ ধামাচাপা দিতে মেয়েটিকে হত্যার উদ্দেশে কুঁয়ার জলে ফেলে দেন। কিন্তু কুঁয়ার প্রান্ত ধরে বহু কষ্টে সারারাত ভেসে থাকে সে । সারাক্ষণ সে সাহায্যের জন্য ডাকাডাকি করতে থাকে। কিন্তু রাতভর বৃষ্টি থাকার কারণে কেউ তার ডাক শুনতে পায়নি। এভাবে ১৫ ঘণ্টা পার হয়ে যায়। পরদিন সকালে তার কান্না শুনতে পেয়ে আশেপাশের লোকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর ধর্ষক পালিয়ে গেছেন। পুলিশ তাকে খুঁজছে।

উদ্ধার পাওয়ার পর মেয়েটি জানায়, ‘আমি সারারাত পানিতে ভেসেছিলাম। পরে লোকজন এসে আমাকে কুঁয়া থেকে উদ্ধার করেছে।’






মন্তব্য চালু নেই