মেইন ম্যেনু

মালয়েশিয়ায় বিমানে বিধ্বস্ত

‘দায় এড়াতে পারে না রাশিয়া’

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় পশ্চিমা বিশ্ব রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দায়ি করছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অন্তর্জাতিক নেতারা। বৃহস্পতিবার ওই বিমান ভূপতিত হওয়ার ঘটনায় ২৮৩ জন যাত্রী এবং ১৫ জন ক্রু নিহত হয়েছেন। এদের অধিকাংশই বিদেশি নাগরিক।

মালয়েশিয়ার এম এইচ-১৫ বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অস্টেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোট। শুক্রবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘এ ঘটনার দায় এড়াতে পারে না রাশিয়া। কেননা রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় এটি বিধ্বস্ত হয়েছে এবং যে অস্ত্র দিয়ে এটিকে আঘাত করা হয়েছিল তা মস্কোর সরবরাহকৃত।’

উল্লেখ, মালয়েশীয় বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় ২৭ অস্ট্রেলীয় নাগরিক প্রাণ হারিয়েছে।

বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক এ ঘটনার জন্য রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দায়ি করে এই ঘটনার আন্তর্জাতিক তদন্ত দাবি করেছেন। তিনি এ নিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, জার্মান চ্যান্সেলর অঙ্গেলা মেরকেল এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোটের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। তারা বিধ্বস্ত বিমানের ওপর একটি নিরপেক্ষ, সম্পূর্ণ এবং স্বচ্ছ আন্তর্জাতিক তদন্তের বিষয়ে একমত হয়েছেন বলে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে।

এদিকে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে নেদারল্যান্ডও। প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুথ জানিয়েছেন, বিমান হামলার সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করা না পর্যন্ত তাদের শান্তি হবে না। বিধ্বস্ত বিমানটিতে সবমিলিয়ে ১৮৯ জন ডাচ নাগরিক ছিলেন েএবং তারা সবাই নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে রুথ আরো বলেন,‘আলামত দেখে মনে হচ্ছে এমএইচ-১৭ বিমানটিকে গুলি করে ভূপতিত করা হয়েছিল। তবে সুনির্দিষ্ট পরিস্থিতি এখনও স্পষ্ট নয়। আমরা ঘটনাপ্রবাহ পর্যালোচনা করে দেখছি। তবে এ বিষয়টি নিশ্চিত যে, এটি যদি হামলার ঘটনা হয়ে থাকে তবে অপরাধীদের খুঁজে বের করে অবশ্যই শাস্তি দেয়া হবে। এর আগে আমরা শান্ত হব না।’

এদিকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের এক জরুরি বৈঠকে জাতিসংঘে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত ভিতালি চুরকিন এই বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় ইউক্রেন সরকারকে দায়ি করেছেন। তিনি বলেন,ইউক্রেনের বিমান কর্তৃপক্ষ দেশের গোলযোগপূর্ণ অঞ্চলের ওপর দিয়ে একটি যাত্রীবাহী বিমানকে যাতায়াতের অনুমতি দিয়েছে। কাজেই এ ঘটনায় তাদেরও দায় রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই