মেইন ম্যেনু

জিন্নাহর মৃত বোনকে গ্রেপ্তারের হুমকি!

পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর মৃত বোনের নামে মোটা অঙ্কের পানির বিল পরিশোধের নোটিশ পাঠিয়েছে করাচির পানি ও পয়নিষ্কাশন বোর্ড। বিল পরিশোধ করা না হলে তাকে গ্রেপ্তার করারও হুমকি দেয়া হয়েছে নোটিশটিতে। কিন্তু মজার বিষয় হল, জিন্নার বোন অর্থাৎ ফাতেমা জিন্নাহ মারা গেছেন প্রায় অর্ধশত বছর আগে।

সোমবার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, ৪৭ বছর আগে মারা যাওয়া ফাতেমা জিন্নার নামে ২ লাখ ৬৩ হাজার ৭৭৪ হাজার পাকিস্তানি রুপির বিল পাঠিয়েছেন পাক কর্তৃপক্ষ। বিলটি হাতে পাওয়ার দশ দিনের মধ্যে তা জমা দিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় তার বাড়ির পানি এবং পয়নিষ্কাশন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে বলে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

নোটিশে আরো বলা হয়, বিল পরিশোধ না করা হলে দেশের প্রচলিত ভূমি রাজস্ব আইন অনুযায়ী তার বাড়ি বাজেয়াপ্ত, নিলাম বা জরিমানা করার অধিকার রাখে করাচির পানি ও পয়নিষ্কাশন বোর্ড। উপরন্তু মৃত ফাতেমা জিন্নাহকে গ্রেপ্তার করারও হুমকি দেয়া হয়েছে। নোটিশের নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ২৮ মে ছিল বিল পরিশোধের শেষ দিন।

মজার বিষয় হল, ফাতেমা জিন্নার যে বাড়ির ঠিকানায় নোটিশটি পাঠানো হয়েছে সেটি একটি জাদুঘর। এখানে পাকিস্তানের স্বধীনতা আন্দোলনের নেতা জিন্নাহ এবং তার বোন ফাতেমা জিন্নহর ব্যবহৃত ব্যক্তিগত জিনিসপত্র দর্শনার্থীদের জন্য সাজিয়ে রাখা আছে।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৪ সালের মার্চ মাসে সোয়া লাখ রুপি দিয়ে ওই বাড়িটি ক্রয় করেছিলেন মিসেস জিন্নfহ। ১৯৪৮ সালে তিনি ওই বাড়িতে গিয়ে ওঠেন এবং ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত তিনি ওই বাড়িতেই বসবাস করছিলেন। ১৯৬৫ সালের নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর তিনি ওই বাড়ি ছেড়ে চলে আসেন। ১৯৬৭ সালে তিনি মারা যাওয়ার পর বাড়িটিকে জাদুঘর হিসেবে সংরক্ষণ করা হয়।

এদিকে এই অদ্ভূত নোটিশের খবর জানাজানি হওয়ার পর বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন পাক কর্তৃপক্ষ। করাচির কমিশনার ইতিমধ্যে ফাতেমা জিন্নাহর নামে জারিকৃত নোটিশটি ফিরিয়ে নেয়ার জন্য করাচির পানি ও পয়নিষ্কাশন বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই