মেইন ম্যেনু

কানাডা হামলার ভিডিও প্রকাশ

কানাডার পার্লামেন্টে হামলার ভিডিও প্রকাশ করেছে দেশটির পুলিশ। এতে দেখা গেছে, একজন বন্দুকধারী একাকি হামলা চালাচ্ছে পার্লামেন্ট ভবনে।

এর কয়েক মিনিট আগে ৩২ বছর বয়সী মাইকেল জেহাফ বিবেয়াউ পার্লামেন্টের কাছে অটোয়া যুদ্ধস্মৃতি সৌধের কাছে এক সেনাকে হত্যা করেন। পরে সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস কেভিন ভিকার্সের গুলিতে মারা যান হামলাকারী।

পুলিশ বলছে, জেহাফ বিবেয়াউ পুলিশের তালিকায় বিপজ্জনক কোনো সন্ত্রাসী ছিল না। তবে উগ্রপন্থি গ্রুপের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। সে সিরিয়া ভ্রমণের জন্য সম্প্রতি পাসপোর্টের আবেদন করেছিল।

রয়েল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ কমিশনার বব পলসন বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, জেহাফ বিবেয়াউ কানাডীয় বংশোদ্ভূত নিম্ন শ্রেণীর একজন সন্ত্রাসী। সম্ভবত তিনি লিবিয়ারও নাগরিক। কারণ তার বাবা লিবিয়া থেকে এখানে এসেছিলেন।

তিনি জানান, যে ৯০ ব্যক্তিকে কানাডীয় নিরাপত্তা বাহিনী এর আগে বিপজ্জনক ব্যক্তি হিসেবে চিহ্ণিত করেছিল তাদের মধ্যে অবশ্য জেহাফ বিবেয়াউর নাম নেই।

এদিকে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার জোর দিয়ে বলেছেন, তার দেশের জনগণ সন্ত্রাসীদের ভয়ে ভীত নয়। তিনি বুধবারের হামলাকে সন্ত্রাসী হামলা উল্লেখ করে সন্ত্রাসবিরোধী তৎপরতা জোরদার করারও অঙ্গীকার করেছেন। এর আগে তিনি বলেছিলেন ইসলামি স্টেটের জঙ্গিরা এ হামলার সঙ্গে জড়িত।

কানাডার অভিযানে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

উল্লেখ্য, রাজধানী অটোয়াতে বুধবার সকালের দিকে স্মৃতিসৌধের কাছে প্রথম গুলির ঘটনাটি ঘটে। পরে পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালানোর পর পুলিশের গুলিতে নিহত হন ওই বন্দুকধারী। তার নাম মাইকেল জেহাফ বিবেয়াউ বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এ মাসের গোড়ার দিকে কানাডা মার্কিন নেতৃত্বে সিরিয়া ও ইরাকে ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে যুদ্ধে সামিল হওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর দেশটির পার্লামেন্টে এ হামলার ঘটনা ঘটলো।






মন্তব্য চালু নেই