মেইন ম্যেনু

৫০০০ বছরের পুরনো গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো গাছটির সন্ধান পাওয়া গেছে ব্রিটেনের ওয়েলসের ডেফিনগ নামের একটি ছোটো গ্রামে। ধারনা করা হচ্ছে তিন হাজার বছর আগে যখন যিশু খ্রিস্ট জন্মেছিলেন তারও আগেকার গাছ এটি।

ডেফিনগের সেন্ট সাইনগ চার্চে অবস্থিত এই গাছটির সঠিক বয়স অনুসন্ধানে বর্তমানে বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন। ডিএনএ এবং রিং ডেটিং পরীক্ষা চালিয়ে গাছটির সত্যিকারের বয়স নির্ধারণ করা হবে।

ব্রিটেনে ৬০০ বছরের পুরনো অনেকগুলো ইয়েউ গাছ আছে। কিন্তু ৬০ ফুট প্রশস্তের এই গাছটি অন্যান্য সব ইয়েউ গাছের তুলনায় বেশ বড়।

৪০ বছর ধরে গাছের বয়স বিষয়ক গবেষক জেনিস ফ্রে জানান, ‘আমি বিশ্বাস করি এই গাছটি ইউরোপের সবচেয়ে পুরনো গাছ। গাছটিকে পুরাতন চার্চের উত্তর দিকে লাগানো হয়েছিল। সম্ভবত চার্চে কবর দেয়া মানুষদের প্রতি সম্মান জানানোর জন্যই এই গাছটি লাগানো হয়েছিল। প্রাথমিক পরীক্ষায় আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি যে গাছটির বয়স পাঁচ হাজার বছরের পুরনো।’

প্রাচীন রোম, গ্রীস এবং মিশরে ইয়েউ গাছকে মৃত্যুর প্রতীক হিসেবে ধরা হতো। কারণ এই গাছের পাতা এবং লাল ফল দুটিই বেশ বিষাক্ত। বিশেষজ্ঞদের ধারণা যদি সঠিক হয় তাহলে এই গাছটির সঙ্গে ইউরোপের পৌত্তলিক ধর্মাবলম্বীদের সম্পর্কের অনেক তথ্য পাওয়া যেতে পারে। শুধু তাই নয় চার্চ সম্পর্কিত প্রচলিত ধারণাও পাল্টে যেতে পারে বলে অনেক বিশেষজ্ঞই মনে করছেন। কারণ যিশু খিস্ট্রের জন্মের অনেক পরে এই প্রজাতির গাছকে খ্রিস্ট ধর্মের শক্তিশালী চিহ্ন হিসেবে ধরা হয়।






মন্তব্য চালু নেই