মেইন ম্যেনু

হঠাৎ উঁচু হতে শুরু করেছে ঘরের মেঝে, বাড়ির সামনে জনতার ঢল

বাগেরহাটের ফকিরহাটে একটি বাড়ির মেঝে হঠাৎ করে উঁচু হয়ে যাওয়ায় সেখানে প্রতিনিয়ত উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা দেখতে আসা উৎসুক জনতা ও বাড়ির লোকজনের কেউ কেউ এটাকে ‘জোড়া কবর’, হিন্দু দেবতা ‘শিব পার্বতী’ বা মাটির নিচ থেকে গম্বুজ বের হচ্ছে বলে প্রচার করছেন।

এ নিয়ে এলাকা তোলপাড়।

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার পাগলা দিয়াপাড়া গ্রামের মনোতোষ দেবনাথের বাড়ির ঘরের একটি কক্ষের মেঝেতে গত ৩ দিন আগে হঠাৎ করে দু’পাশ থেকে টিলার মত উঁচু হয়ে ওঠে। এরপর বিষয়টি জানাজানি হলে বিভিন্ন বয়স্ক ও পুজারীদের পরামর্শে ওই কক্ষটি ছেড়ে সরে আসে পরিবারের সদস্যরা। ওই কক্ষে বসবাস করতেন বাড়ির গৃহকর্তা মনতোষ পালের ছেলে আশীষ দেবনাথ ও তার স্ত্রী রীতা দেবনাথ।

বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিনিয়ত নারী পুরুষ, আবাল বৃদ্ধ বনিতারা ওই বাড়ির ঘরের জানালা দিয়ে দেখতে ভিড় করছেন। প্রকৃত রহস্যটি কেউ সঠিকভাবে ব্যখ্যা দিতে পারছেন না। অনেক উৎসুক জনতা বিভিন্ন মন্তব্য করছেন।

বাড়ির মালিক মনতোষ দেবনাথ বলেন, ১৯৮৮ সালে ঘরটি নির্মাণ করার পর এ ধরনের ঘটনা প্রথম। আসলে কিভাবে ঘরের মেঝে থেকে মাটি উঁচু হয়ে উঠছে তা আমি জানি না। ওই ঘরে বর্তমানে কেউ বসবাস করছে না।

তবে গৃহকর্তার পুত্রবধূ রীতা দেবনাথ বলেন, সপ্তাহখানেক আগে আমি স্বপ্ন দেখি মা মনসা আমার কাছে আসছেন। ওখানে দুধ, কলা দিতে বলেছেন। আর আস্তে আস্তে ওই জায়গাটি উঁচু হয়ে যায়। আমাদের জয়মা বলেছেন ওই জায়গায় বসবাস করা যাবেনা। সকলকে ভক্তি শ্রদ্ধা করতে হবে। উৎসুক জনতারা এটাকে জোড়া কবর, শিব পার্বতী বের হবে বা মাটির নিচ থেকে গম্বুজ বের হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন।

বাগেরহাটের ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বজলুর রশিদ বলেন, পুলিশ ওই বাড়ি পরিদর্শন করেছে। ধর্মীয় বিষয় নিয়ে কথা বলছে অনেকে। ভিড় আছে উৎসুক জনতার। উপজেলা নিবর্হী কর্মকর্তা ছুটি থেকে আসার পর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই