মেইন ম্যেনু

হজ উপলক্ষে হোটেলের আবাসন সুবিধা বাড়াবে সৌদি

হজ উপলক্ষে হোটেলের আবাসন সুবিধা বাড়িয়ে ৭ লাখে উন্নীত করার কাজ শুরুর ঘোষণা দিয়েছে সৌদির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়। হজ ও ওমরাহ উপমন্ত্রী মোহাম্মাদ আল বাইজান জানান, হোটেলের আবাসন সংখ্যা বাড়িয়ে মদীনার স্থানীয় অর্থনীতির উন্নয়ন ঘটাতে সহায়তা করবে মন্ত্রণালয়।

আল বাইজান আরো বলেন, ‘দর্শনার্থী ও হজ যাত্রীদের আরো উন্নত সেবা প্রদানের মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় যুবকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। মন্ত্রণালয় হজ পরিষেবা আরো উন্নত করতে চায়। এরই অংশ হিসেবে হজ যাত্রীদের জন্য হোটেলের আসন সংখ্যা বৃদ্ধির উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।’

এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয় থেকে শনিবার একটি ফোরামের আয়োজন করা হয়। এতে আসন সংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা করেন নীতি নির্ধারক থেকে শুরু করে স্টেক হোল্ডার এবং বুদ্ধিজীবীরা। মদীনার আমির প্রিন্স ফয়সাল বিন সালমান ফোরামের সমর্থন করে পাবলিক সেক্টর ও সমাজের মধ্যে সংযোগ তৈরির কথা বলেছেন।

দর্শনার্থী ও হজ যাত্রীদের জন্য হোটেলে আসন ক্ষমতা বৃদ্ধিতে বেসরকারি খাতের অংশগ্রহনের গুরুত্ব নিয়েও ফোরামে আলোচনা করা হয়।

চার বছরে সৌদিতে হজযাত্রীর সংখ্যা বেড়ে হবে ১ কোটি ৫০ লাখ। মদীনায় বর্তমানে হজের সময় হোটেলে ৩ লাখ ২০ হাজার আবাসন ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া বছরের অন্য সময়ে আবাসন ব্যবস্থা থাকে দেড় লাখ। আবাসনের জন্য দুটি প্রকল্পের কাজ নির্মাণাধীন রয়েছে।

দার আল হিজরা প্রকল্প ১ কোটি ৬০ লাখ বর্গ মিটার জুড়ে বিস্তীর্ণ হবে। এতে খরচ হবে ৫৫ কোটি সৌদি রিয়েল ও আসন ক্ষমতা থাকবে ১ লাখ ২০ হাজার। অপর প্রকল্প আর্দ হুজাজ আল বীরে খরচ হবে ১ কোটি ৮ লাখ সৌদি রিয়েল। এতে আসন সংখ্যা থাকবে ৬৬ হাজার।

গত কয়েক বছর ধরেই হজ সেবা উন্নত করছে সৌদি। আগে বিমানবন্দরে নামার পর নিজেদের থাকার জায়গায় পৌঁছাতে একজন হজযাত্রীর প্রায় ১৬ ঘণ্টার মত সময় লাগত। কিন্তু এখন সময় লাগে মাত্র ২৫ মিনিট।






মন্তব্য চালু নেই