মেইন ম্যেনু

সুইডেনের অভিবাসী নিয়ে মন্তব্যে বিপাকে ট্রাম্প

অভিবাসীদের নিয়ে সুইডেন বিপাকে আছে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজের দাবির প্রমাণ হিসেবে ফক্স নিউজে সম্প্রচারিত সংবাদকে উদ্ধৃত করেন তিনি।

ট্রাম্পের ওই মন্তব্যের পর থেকেই সুইডেনের কর্মকর্তারাও তা নিয়ে পাল্টা যুক্তি দিয়ে যাচ্ছেন।

দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম সপ্তাহেই ডোনাল্ড ট্রাম্প জাতীয় নিরাপত্তার কথা বলে আমেরিকার সীমান্তে কড়া নিরাপত্তা জোরদারের তোড়জোর শুরু করেন। এজন্য তিনি আমেরিকার সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণেরও উদ্যোগ নেন।

গত শনিবার এক সমাবেশে অভিবাসীদের সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে ট্রাম্প দাবি করেন, ‘অভিবাসীদের নিয়ে সুইডেন ব্যাপক সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন গত রাতে সুইডেনে কী ঘটে গেছে। এটা কারো কাছেই বিশ্বাস করার মতো নয়। তারা বিরাটসংখ্যক অভিবাসী নিল। তারা এখনই সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে আর পরবর্তী সময়ে তারা এটা থেকে বের হওয়ার চিন্তাও করতে পারবে না।’

তবে অভিবাসী গ্রহণকে কেন্দ্র করে সুইডেনে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনাই ঘটেনি। বরং সুইডেনের পক্ষ থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরকে এ রকম মন্তব্যের জন্য ব্যাখ্যা দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ সম্পর্কে গত রোববার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প উল্লেখ করেন, ‘সুইডেনে কী ঘটছে সে সম্পর্কে আমার বক্তব্যের প্রমাণ হলো ফক্স নিউজের সেই সংবাদ। যেখানে সুইডেনের অভিবাসী সমস্যা গুরুত্ব সহকারে উঠে এসেছে।’

আমেরিকান সংবাদভিত্তিক চ্যানেল ফক্স নিউজ নির্বাচনের সময় থেকেই ট্রাম্পের পক্ষ নিয়ে সংবাদ সম্প্রচার করে আসছিল। সুইডেনে অভিবাসীসংক্রান্ত সংঘটিত অপরাধ নিয়ে গত শুক্রবার তারা একটি সংবাদ সম্প্রচার করে। ট্রাম্পের যুক্তির জায়গাটাও ফক্স নিউজের সেই সংবাদ প্রতিবেদন।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র ক্যাটরিনা অক্সলসন বলেন, ‘ট্রাম্প মূলত সাম্প্রতিক সময়ে সংঘটিত বিভিন্ন অপরাধকে অভিবাসী সমস্যার কারণ হিসেবে উল্লেখ করছেন। কিন্তু কোন দেশের অভিবাসীরা বা কারা এই অপরাধের সঙ্গে যুক্ত তা নির্দিষ্ট করে না বলে কেবল মুসলমানদের দোষ দিচ্ছেন।’

ক্যাটরিনা অক্সালসনের এ মন্তব্যের পর আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রী তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আমরা স্বচ্ছতা বজায় রাখার চেষ্টা করছি।’

ট্রাম্পের ওই মন্তব্যের পর ফক্স নিউজের রিপোর্ট দেখে আমেরিকায় সুইডিশ হাইকমিশন বিরক্তি প্রকাশ করে এক টুইট বার্তায় লেখেন, ‘আমরা বিষয়টি দেখার পর সুইডেনের অভিবাসীবিষয়ক এবং অন্যান্য রাজনৈতিক বিষয়াদি দেখভালের দায়িত্ব আমেরিকান কর্মকর্তাদের দিয়ে দিচ্ছি।’

ওই টুইট বার্তায় আরো লেখা হয়, ‘আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প তিন মিলিয়নের বেশি ভোট জালিয়াতি করেছে।’

সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালস্ট্রম গত রোববারই টুইট করেন, ‘গণমাধ্যমের কারণে গণতন্ত্র এবং দুর্নীতি আমাদের কাছে সমান হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি ট্রাম্পের কাছে তিনি প্রশ্নও রাখেন, ‘সুইডেনে কি সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে?’






মন্তব্য চালু নেই