মেইন ম্যেনু

‘রাস্তাঘাটে ড্যাবড্যাবিয়ে মেয়ে দেখা ভারতীয় পুরুষদের বিনোদন’

দিলীপ মজুমদার (কলকাতা): ‘রাস্তাঘাটে মেয়ে-দেখা ভারতীয় পুরুষদের বিনোদন। ভারতে যাওয়ার আগে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন এবং সতর্ক থাকবেন, একা কোনও নির্জন জায়গায় যাবেন না।’ ভারত ঘুরে দেশে ফিরে অন্যান্য মহিলাযাত্রীদের এমনই পরামর্শ এক ট্রাভেল এক্সপার্টের।

ভারতের মাটিতে কোনও মহিলা যৌন লালসার শিকার হলে, সেই খবর ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যমেও শিরোনামের সারিতে পড়ে। কারণ, তাঁদের দেশ থেকে বহু মহিলা ভারত-ভ্রমণে আসেন। সে ক্ষেত্রে লোলুপ দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকা পুরুষদের হাত থেকে কী ভাবে মহিলা পর্যটকদের নিরাপদে রাখা যায়, তা নিয়ে চিন্তিত ব্রিটেন। ভারত-ফেরত বেশ কয়েকজন পর্যটকের সঙ্গে কথা বলে ভারত-ভ্রমণের ‘ডুজ’ এবং ‘ডোন্টজ’ বাতলে দিচ্ছে ব্রিটিশ বিদেশ দপ্তর।

বদাউনে দুই মেয়ের ধর্ষণের পর তাঁদের গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া এবং মধ্য প্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাবুলাল গৌরের বিতর্কিত বয়ান ব্রিটেনেও সাড়া ফেলেছে।

ব্রিটিশ নিউজ ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ ধরনের খবরে ধিক্কার সূচক মন্তব্য পোস্ট করেছেন অনেকে। এর পর বিলেত থেকে কেউ ভারত-ভ্রমণে আসতে চাইলে সবার আগে ট্রাভেল এক্সপার্টদের দ্বারস্থ হচ্ছেন। উদ্দেশ্য? তাঁদের কাছ থেকে পরামর্শ নেওয়া। ভারতে কী ধরনের পোশাক পরলে পুরুষের দৃষ্টি তা ভেদ করতে পারবে না, কী ভাবে চলাফেরা করলে কোনও পুরুষের অবাঞ্ছিত স্পর্শ থেকে নিজেকে বাঁচানো যাবে, কোথায়-কার সঙ্গে যেতে পারেন বা পারেন না ইত্যাদি।

এমনই একটি প্রশ্নের উত্তরে ট্রাভেল এক্সপার্ট জিল চার্লটন জানিয়েছেন, ‘মহিলাদের ড্যাবড্যাবিয়ে দেখা ভারতীয় পুরুষদের প্রিয় বিনোদন। এমনকি নান (সন্ন্যাসিনী)-রাও নিস্তার পান না। কিন্তু সম্মান অর্জন করতে হলে রক্ষণশীল পোশাক পরা উচিত।’ তাঁর পরামর্শ, ‘শহরগুলিতে ওড়না খুব কাজে আসতে পারে।’ জিল আরও বলেছেন, ‘ভারতীয় শিক্ষিত, সংস্কৃতীসম্পন্ন মহিলারা স্কিন-টাইট জিন্স পড়লেও কাঁধে ওড়না নিতে ভোলেন না। কারণ তাঁরা জানেন ওই ওড়নাই তাঁদের শরীরকে বিশেষত স্তনদ্বয়কে কোনও বিকৃত মানসিকতা সম্পন্ন পুরুষের অবাঞ্ছিত স্পর্শ থেকে বাঁচাতে পারে।’

ব্রিটিশ বিদেশ দপ্তরের তরফেও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ‘ভারত-ভ্রমণের সময়ে মহিলাদের যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া এবং সতর্ক থাকা উচিত। মহিলা এবং কিশোরী-যুবতীদের যৌন লালসার শিকার হওয়ার ঘটনা সেখানে উত্তোরত্তর বাড়ছে। সম্প্রতি পর্যটন এলাকা এবং শহরগুলিতে মহিলা পর্যটকরা যে ভাবে যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছেন, তা প্রমাণ করছে ভারতে বিদেশি মহিলারা নিরাপদে নেই।’

সেখানে বলা হয়েছে যে, ব্রিটিশ মহিলারা গোয়া, দিল্লি, বেঙ্গালুরু এবং রাজস্থানে যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছেন। ‘এক বা একাধিক পুরুষ মহিলাদের প্রতি অশ্লীল মন্তব্য এবং অঙ্গভঙ্গি করে’, এমনও বলা হয়েছে দপ্তরের তরফে জারি বিবৃতিতে।

চলতি বছরে যৌন নিগ্রহের শিকার পলিশ, জার্মান এবং ড্যানিশ পর্যটকদের উদাহরণ টেনে এনে বিদেশ দপ্তরের সতর্কতামূলক পরামর্শ, ‘আপনি যদি মহিলা এবং ভারতে ভ্রমণ করতে যাচ্ছেন, তা হলে স্থানীয় ড্রেস কোড এবং নিয়ম মেনে চলুন। বিচ বা অন্য যে কোনও নির্জন এলাকায় একা যাবেন না।’






মন্তব্য চালু নেই