মেইন ম্যেনু

যুবলীগ কর্মীর ১২ টুকরা লাশ : দুইজনের মৃত্যুদণ্ড

কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার যুবলীগ কর্মী সবুজ মিয়াকে হত্যা করে ১২ টুকরা করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দুইজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

রোববার ঢাকার ৪ নং দ্রুত বিচার টাইব্যুনালের বিচারক আব্দুর রহমান সরদার এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- উনা মিয়া ওরফে উনা ডাকাত ও এনাম হোসেন খোকন। এদের মধ্যে এনাম হোসেন খোকন পলাতক রয়েছেন। অপর আসামি সাদেককে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেছেন বিচারক।

আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মাহফুজুর রহমান লিখন বলেন, কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার যুবলীগ কর্মী সবুজ মিয়াকে হত্যার অপরাধে দুইজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। অপর এক আসামিকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেছেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১২ সালের ২১ আগস্ট থেকে ২০১২ সালের ২৩ আগস্টের মধ্যে যেকোনো সময় আসামিরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে সবুজ মিয়া ওরফে আলমকে হত্যা করে মরদেহ ১২ টুকরা করে তার অংশবিশেষ বস্তাবন্দি করে নুরপুরের বিল/জলাশয়ের কচুরিপানার ভেতর লুকিয়ে রাখে।

এ ঘটনায় সবুজের ভাই সমাজ আহম্মেদ কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।






মন্তব্য চালু নেই