মেইন ম্যেনু

মোদির উত্তরীয় যেভাবে তরুণীর গায়ে

শিল্পী তিওয়ারির ইচ্ছেটা ছিল, তাই উপায়ও মিলল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একখানা ময়ূরকণ্ঠী রঙের উত্তরীয় পাওয়ার ইচ্ছা চেপে রাখেননি ২৩ বছরের শিল্পী। মোদির টুইটারে সেই ইচ্ছের কথা জানানও তিনি। এরপর যা ঘটল তা প্রায় অবিশ্বাস্য। একটি দিন না যেতেই তাঁর আবদার মেটালেন মোদি।

ঘটনার শুরু গত শনিবার। শিবরাত্রির দিন কোয়েম্বত্তুরে একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে তাঁকে ময়ূরকণ্ঠী রঙের একটি উত্তরীয় পরিয়ে স্বাগত জানানো হয়। ওই উত্তরীয়টি শিল্পী তিওয়ারির দারুণ পছন্দ হয়। তবে মনের এই কথাটি চেপেও রাখেননি তিনি। কোনো কিছু না ভেবেই টুইটারে উত্তরীয় পরা প্রধানমন্ত্রীর একটি ছবি পোস্ট করে তাতে ট্যাগ করে তিনি জানান, ‘এই উত্তরীয়টা আমার চাই।’

টুইটারে অবশ্য কোনো জবাব দেননি মোদি। তবে, শিল্পী তিওয়ারির ওই টুইটের ঠিক ২১ ঘণ্টা পরে তাঁর বাড়িতে কুরিয়ার সার্ভিসে পৌঁছে যায় উত্তরীয়টি, সঙ্গে সই সমেত পোস্ট করা ওই ছবির একটি অনুলিপি। খবর: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

প্রধানমন্ত্রী যে তাঁর আবদার রাখতে এত কিছু করবেন, তা ভাবতেই পারেননি শিল্পী। আনন্দে আত্মহারা হয়ে আবারও টুইট করেন তিনি। ধন্যবাদ জানান মোদীকে। শিল্পী সব সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মোদি সরকারকে সমর্থন করে আসছেন।

ভারতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে মন্ত্রী-রাজনীতিবিদদের জনগণের কাছে পৌঁছে যাওয়া নতুন কিছু নয়। বিশেষ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ও রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভুকে এই ভূমিকায় প্রায় দেখা গেছে। তবে, মোদিকে এমন ভূমিকায় এই প্রথম দেখা গেল বলেই অনেকের ধারণা।






মন্তব্য চালু নেই