মেইন ম্যেনু

মহিলার সঙ্গে অশ্লীল ব্যবহারের দায়ে ভারতে এক মন্ত্রীর পদত্যাগ

ভারতের কেরালার এলডিএফ সরকারে ধাক্কা। এক মহিলার সঙ্গে অশ্লীল কথোপকথনের অভিযোগে পদত্যাগ করতে বাধ্য হলেন কেরালার পরিবহণ মন্ত্রী একে শশীন্দ্রণ। পদত্যাগ করলেও তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ মানতে চাননি ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির পাঁচবারের বিধায়ক। খবর ইন্ডিয়া টাইমসের।

রোববার একটি টেলিভিশন চ্যানেলে এক মহিলার সঙ্গে কুত্‍‌সিত ভাষায় মন্ত্রীর কথোপকথনের অডিও ক্লিপ সম্প্রচারিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নিজের সরকারি বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে পদত্যাগ ঘোষণা করেন ৭১ বছর বয়সি এই মন্ত্রী। ওইদিন অডিও ক্লিপ সম্প্রচারিত হয় স্থানীয় মঙ্গলম টিভিতে।

শশীন্দ্রণ জানান, ‘ওই চ্যানেল যে খবর সম্প্রচার করেছে তা সঠিক নয়। আমার সঙ্গে ওই ভিডিও ক্লিপের কোনও সম্পর্ক নেই। তবে রাজনৈতিক আদর্শের জায়গা থেকে আমি পদত্যাগ করছি। আমার দলও এই রাজনৈতিক মতাদর্শ বরাবর মেনে চলেছে। এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানাচ্ছি।’ তার ইস্তফা গ্রহণের সময় তিনি দোষ স্বীকার করছেন বলে ধরা হয়নি বলে জানিয়েছেন শশীন্দ্রণ।

অডিওটি সম্প্রচারের চার ঘণ্টা পরই বিকেল ৩টায় নাগাদ পদত্যাগ করেন শশীন্দ্রণ। যে অডিওটি শোনানো হয়েছে, তার কণ্ঠস্বর তারই কি না এই প্রশ্নের উত্তরে সদ্য সাবেক মন্ত্রী বলেন, ‘আমি অডিও ক্লিপটা এখনও দেখিনি। কোনও মহিলার সঙ্গে খারাপভাবে কোনও কথা বলিনি। পদত্যাগ যাতে না করতে হয়, সেজন্য অনেক বিষয় আমি তুলে ধরতে পারি। অনেকেই বলছেন, ওই ক্লিপে কোনও মহিলার কণ্ঠই শোনা যায়নি। তবে সেসব না করে আমি আগে আমার দলের ভাবমূর্তি রক্ষা করতে চাই।’

মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন তাকে ইস্তফা দিতে বলেননি বলে দাবি করে শশীন্দ্রণ জানান, তিনি নিজেই তাকে ফোন করে পদত্যাগের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। এর আগে, বিজয়ন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, বিষয়টিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই