মেইন ম্যেনু

ভারতে রেড অ্যালার্ট, মৃতের সংখ্যা ২হাজারেরও বেশি

বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ তাপদাহের তালিকায় পঞ্চম স্থানে উঠে এল ভারতের নাম। এবার ভারতে যে পরিমাণ গরম পড়েছে, তা মারাত্মক তাপদাহের তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে। আর ভারতে এমন গরম পড়ল দ্বিতীয়বার। এর আগে ১৯৯৮ সালে এরকম গরম পড়েছিল তাতে মৃত্যু হয়েছিল ২,৫৪১ জনের।

ব্রাসেলস ভিত্তিক আন্তর্জাতিক দূর্যোগের ডাটাবেজের সংরক্ষণকারী সংস্থা ‘সেন্টার ফর রিসার্চ অন এপিডেমোলোজি অব ডিজাসটার’ এ তথ্য জানিয়েছে।

বিশ্বের সর্বোচ্চ তাপদাহের তালিকায় দেখা যায় ইউরোপে ২০০৩ সালে তাপদাহে মৃত্যু হয়েছিল ৭১,৩১০ জনের। এটাই সবথেকে ভয়ঙ্কর দাবদাহের উদাহরণ। এছাড়া প্রথম দশে রয়েছে ভারতের ১৯৯৮, ২০০২, ২০০৩ ও ২০১৫। বিশ্বের কয়েকটি জরুরীকালীন অবস্থার তালিকা থেকে এই তথ্য উঠে এসেছে।

এদিকে, ভারতের বিভিন্ন অংশে ক্রমেেই বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যা। শনিবার পর্যন্ত মোট ২,২০৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহারাষ্ট্রের নাগপুরে তাপমাত্রা সবচেয়ে বেশি। সেখানকার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়ে ৪৭.১ ডিগ্রি। রবিবার সকালে অন্ধ্রপ্রদেশে আরও ১৪৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে প্রকাশম জেলায়। মৃতের সংখ্যা ৩৩৩। অন্ধ্রের উপকূলে কোনও কোনও জায়গায় বৃষ্টি হয়েছে। তেলেঙ্গানায় মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৫৪১।

এদিকে, ভারতে গত ২৪ ঘন্টায় ২০৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যম। দেশ জুড়ে জারি হয়েছে রেড অ্যালার্ট। বিভিন্ন রাজ্যে জরুরী তৎপরতা নেওয়া হয়েছে। ভারতে চলমান তাপদাহে মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ২ হাজার ছাঁড়িয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই