মেইন ম্যেনু

বিয়ের গয়না চুরি, কনের মায়ের আত্মহত্যা!

মেয়ের বিয়ের গয়না চুরির পর ক্ষোভে দু:খে আত্মহত্যা করেছেন কনের মা। শনিবার ভারতের কেরলা রাজ্যের পালাপ্পুরাম এলাকায় এই হৃদয় বিদারক ঘটনাটি ঘটে।

নিহত গৃহবধুর নাম শোভানা বালাচন্দ্র। ৩৯ বছরের এই নারী তার বাড়ির কাছের এক রেললাইনে আত্মহত্যা করেন বলে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।

শোভানা তার ছোট মেয়ের বিয়ের জন্য ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে গয়না কিনেছিলেন। বুধবার রাতে তার বাড়ি থেকে ওই অলঙ্কার এবং ৪১ হাজার রুপি চুরি হয়ে যায়। এ নিয়ে ভীষণ মুষড়ে পড়েছিলেন দুখী মা। শুক্রবার রাতে তিনি টয়লেটে যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বেরিয়ে যান। কিন্তু দীর্ঘ সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও তিনি ফিরে না আসায় পরিবারের সদস্যরা তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। বাড়ি থেকে ৩শ মিটার দূরের রেললাইনে তার মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া যায়।

শোভানা বিধবা হয়েছিলেন দশ বছর আগে। স্বামীর মৃত্যুর পর দৈনন্দিন মজুরির ভিত্তিতে ছোটখাট কাজ করে দিন কাটছিল তার। এরই মধ্যে ছোট মেয়ের বিয়ে ঠিক হয়। এ মাসের ৩০ তারিখে এ বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। তার আগেই অলঙ্কার চুরির ঘটনায় ভেঙে পড়েছিলেন শোভানা। তবে এই চুরির ঘটনায় বিয়ে ভেঙে দেবে না বলে তাকে আশস্ত করেছিল হবু বরের পরিবার। কিন্তু এতেও শোভনার ভয় দূর হয়নি। তাই বুঝি মনের দু:খে আত্মহননের পথ বেছে নিলেন।

প্রসঙ্গত, ভারতে বিয়ের সময় কনের পরিবার বরকে প্রচুর যৌতুক দিয়ে থাকে। এই যৌতুক প্রথাকে কেন্দ্র করে দেশটিতে নববধূকে হত্যা করাসহ নানা ধরনের সামাজিক অপরাধ হয়ে থাকে।






মন্তব্য চালু নেই