মেইন ম্যেনু

বকেয়া না মেটালে সার্ক থেকে বহিষ্কার করা হবে পাকিস্তানকে!

সাত বছরের ফি বকেয়া। সার্কের সব সদস্য দেশ টাকা দিয়ে দিয়েছে। দেয়নি শুধু পাকিস্তান। বকেয়া ৭৮ লক্ষ ৫০ হাজার ডলার। সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি খাতে প্রদেয় এই টাকা অবিলম্বে মেটাতে হবে— পাকিস্তানকে জানিয়ে দিল অন্য সব সদস্য দেশ। ফি না মেটালে প্রকল্পটি থেকে বহিষ্কারের মুখে পড়তে হতে পারে ইসলামাবাদকে, এমন ইঙ্গিতও দিয়ে দেওয়া হয়েছে সার্কের তরফে। খবর আনন্দবাজারের।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলির পড়ুয়াদের সামনে উন্নত মানের উচ্চশিক্ষার সুযোগ আরও বাড়াতে সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে সার্ক দেশগুলি। ২০১০ সালে দিল্লিতে অস্থায়ী ক্যাম্পাস চালুও হয়ে গিয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান এই প্রকল্পের অংশীদার হয়েও তাদের আর্থিক দায়বদ্ধতা পালন করেনি। সার্ক সূত্রের খবর, বকেয়া ফি মিটিয়ে দেওয়ার জন্য অনেক বারই ইসলামাবাদকে চাপ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান টালবাহানা চালিয়ে যাচ্ছে।

২০১৬-র ২৮ নভেম্বর ঢাকায় সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটির গভর্নিং বডির নবম বৈঠক বসেছিল। সেই বৈঠকে পাকিস্তানের বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তার পরে ২০১৭-র ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে কাঠমান্ডুতে সার্ক প্রোগ্রামিং কমিটির ৫৩তম বৈঠক বসেছিল। সেখানেও পাকিস্তানের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে এবং পাকিস্তানকে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। ভারত এবং সার্কের অন্য সদস্যরা পাকিস্তানকে সাফ জানিয়েছে, কয়েক মাসের মধ্যে বকেয়া না মেটালে সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রকল্প থেকে পাকিস্তানকে বহিষ্কারের কথাই ভাবতে হবে। ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে।

শুধু সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রকল্প নয়, সার্কের যে কোনও বড় উদ্যোগকেই পাকিস্তান ভেস্তে দেওয়ার চেষ্টা করে বলে নয়াদিল্লি সূত্রের খবর। সার্ক সদস্যদের মধ্যে সড়ক ও রেল যোগাযোগ বৃদ্ধির প্রকল্প, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইতে সার্ক সদস্যদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধির প্রকল্প— এমন অনেক যৌথ প্রকল্পই পাকিস্তানের বাধায় আটকে গিয়েছে। সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি স্থাপনের প্রস্তাবকে পাকিস্তান কোনও অজুহাত দেখিয়ে আটকাতে পারেনি। কিন্তু টাকা না মিটিয়ে প্রকল্পের সঙ্গে অসহযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই