মেইন ম্যেনু

প্রেম করে বিয়ে করায় যে খেসারত দিতে হল এই দম্পতিকে

প্রেমের বিয়েতে ক্ষেপেছে মোড়লরা। বিয়ে ভেঙে দিয়ে ২ লাখ টাকা জরিমানার নির্দেশ। টাকা আদায়ের চাপও হচ্ছিল। অপমানে আত্মঘাতী দম্পতি। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ভারতের মুর্শিদাবাদের খড়গ্রামে। সালিশি সভা বসানোয় নাম জড়ায় কংগ্রেস নেতার বিরুদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার করেন কংগ্রেস নেতা।

একে অপরকে ভালবেসে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু বিয়ে ভেঙে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল সালিশি সভা। সেই নির্দেশের জেরে আত্মঘাতী দম্পতি।

ঘটনার সূত্রপাত গত বছর ডিসেম্বরে। পুলিশ সূত্রে খবর, শঙ্করপুর গ্রামের কাবিরুল শেখের সঙ্গে বিয়ে হয় একই পাড়ার সারবানু বিবির। কিন্তু প্রেম করে বিয়ে মেনে নিতে পারেনি কাবিরুলের পরিবার ও গ্রামের কিছু লোকজন।

ফলে বাধ্য হয়ে আলাদা থাকতেন কাবিরুল ও সারবানু। অভিযোগ, মিটমাট করার জন্য দিন পনের আগে স্থানীয় কংগ্রেস নেতা আজমল শেখের বাড়িতে সালিশি সভা বসানো হয়। বিয়ে ভেঙে দেয়ার নির্দেশের পাশাপাশি কাবিরুলের ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। চাপ দেয়া হয় ৩০ তারিখের মধ্যেই দিতে হবে টাকা।

সারবানুর পরিবার সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কাবিরুলের কাছে যান সারবানু। শুক্রবার সকালে ঘর থেকে উদ্ধার হয় দম্পতির ঝুলন্ত দেহ। পরিবারের দাবি, সালিশি সভার জেরে ঘটে এ ঘটনা।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এরকম সালিশি সভা প্রায়ই বসে। যদিও সালিশি সভা বসানোর কথা অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত কংগ্রেস নেতা আজমল শেখ।
ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে পুলিশ। কান্দির এসডিপিও সন্দীপ সেন জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই