মেইন ম্যেনু

পৃথিবী ছেড়ে মহাকাশে পালাও, নয়তো মর : হকিং

এক হাজার বছরের মধ্যে পৃথিবী বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়বে। ফলে বাঁচতে চাইলে এই পৃথিবী ছাড়। পাড়ি জমাও মহাকাশে। নইলে চিরনিশ্চহ্ন হয়ে যেতে হবে পুরো মানবজাতিকে। এভাবেই সতর্ক করে দিয়েছেন স্টিফেন হকিং।

ব্রিটিশ এই তাত্ত্বিক মহাকাশ-চিন্তক বলেছেন, ‘মানবজাতির ভবিষ্যতের কথা ভেবেই আমাদের উচিত মহাশূন্যে যাত্রা করা।’

৭৩ বছর বয়সী এই বিজ্ঞানী বলেন, ‘আরও হাজার খানেক বছর যে আমরা টিকে থাকব, আমি তা মনে করি না। যদি না কেবল ভঙ্গুর এই পৃথিবী ছেড়ে চলে যাই আমরা।’

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ২৫ এপ্রিল শনিবার সিডনি অপেরা হাউজের অনুষ্ঠানে মেয়ে লুসির সঙ্গে আমন্ত্রিত হয়েছিলেন স্টিফেন হকিং। সেখানেই তিনি এসব কথা বলেন।

উপস্থিতিকে সাহস দিতে হকিং বলেন, ‘নক্ষত্রের পানে চাও। তোমার পায়ের তলায় নয়।’

এই অনুষ্ঠানেও হকিং পুনরায় তার সতর্কবাণী ব্যক্ত করেছেন—একদিকে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উত্থান হচ্ছে, অন্যদিকে মানুষের আগ্রাসী মনোভাব ও বর্বরতা বেড়েই চলেছে। বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ার মতো হুমকির মুখে নিজেকে নিজেই ঠেলে দিচ্ছে মানুষ।

এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে হকিং বলেছিলেন, মানুষজাতিকে টিকে থাকতে হলে ‘অন্য কোনো গ্রহে কলোনি গড়ে তুলতে হবে’। এরও আগে, ২০১০ সালের আগস্টে তিনি একই ধরনের কথা বলেছিলেন।

হকিং তার জীবনীনির্ভর ফিল্ম ‘থিওরি অব এভরিথিং’ নিয়েও কথা বলেন শনিবার। কথা বলেন তার বিখ্যাত বই ‘আ ব্রিফ হিস্টোরি অব টাইম’ নিয়ে, যেখানে তিনি মাত্র একটি সূত্র (আইনস্টাইনের E= mc2) উল্লেখ করেছেন। হকিং মজা করে বলেছেন, ‘আমি নিশ্চিত, ওই সূত্রটি বাদ দিলে বইটার বিক্রি আরও দ্বিগুণ বেড়ে যেত!’

তথ্য: দ্য গার্ডিয়ান, দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট






মন্তব্য চালু নেই