মেইন ম্যেনু

নেপালে নিহতের সংখ্যা ৩৭০০ ছাড়িয়েছে

ভূমিকম্পে নেপালে নিহতের সংখ্যা ৩ হাজার ৭০০ ছাড়িয়েছে। সোমবার বেলা ৩টা পর্যন্ত এ নিহতের এ হিসাব পাওয়া গেছে।

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে যে স্থানে ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল, যে স্থান ও আশপাশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এখনো উদ্ধার অভিযান শেষ হয়নি। উদ্ধার অভিযান যতই এগোচ্ছে, ততই বাড়ছে লাশের সংখ্যা। পাহাড়া অধ্যূষিত নেপালের পাহাড়ি গ্রামগুলোতে নিহতের সংখ্যা বেশি হবে ধারণা করা হচ্ছে। ওইসব পাহাড়ি গ্রামে উদ্ধারকারী দল পৌঁছানোর চেষ্টা করছে।

নেপালের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে গার্ডিয়ান অনলাইন জানিয়েছে, ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত ৬ হাজার ৫০০ জনের বেশি আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাদের অনেককেই চিকিৎসা সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। হাজারো মানুষ খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। কাঠমান্ডু পরিণত হয়েছে তাবুর শহরে। সাহায্যকারী দেশ ও সংস্থার কাছ থেকে পাওয়া তাবু দিয়ে তৈরি করা হয়েছে অস্থায়ী আবাস।

নেপালের গোরখা জেলার শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তা উদাব প্রাসাদ তিমালমিনা জানিয়েছেন, এই জেলার ৭০ শতাংশ ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে। জরুরিভিত্তিতে সেখানে মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন।

এদিকে নেপালের পুলিশ সোমবার জানিয়েছে, তাদের কাছে আসা তথ্য মতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৬১৭ জনে।

শনিবার নেপালে দুই দফায় আঘাত হানা বিধ্বংসী ভূমিকম্পের পর থেকে থেকে সেখানে ঝাঁকুনি হচ্ছে। এতে আরো শঙ্কিত হয়ে পড়েছে নেপালের লোকজন। নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে তারা দিশেহারা হয়ে ছুটছে।

এদিকে ভূমিকম্পে হিমালয়ে আটকা পড়েছে কয়েক শ আরোহী। ১৭ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আরোহীদের মধ্যে সবাই প্রায় বিদেশি। তাদের উদ্ধারের জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। সোমবার কয়েকজনকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে গার্ডিয়ান অনলাইন।






মন্তব্য চালু নেই