মেইন ম্যেনু

নিখোঁজ রুশ সামরিক বিমানটি কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত

নিখোঁজ হওয়া রুশ সামরিক বিমানটি ক্রাসনোডার এলাকার পাহাড়ে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে রুশ কর্তৃপক্ষ। দেশটির প্রতিরক্ষা ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বিধ্বস্ত হওয়া টিইউ-১৫৪ সামরিক বিমানটিতে ৯১ জন আরোহী ছিলেন। তাদের মধ্যে ৮৩ জন যাত্রী। বাকী ৮ জন বিমান কর্মী।

সূত্রের বরাত দিয়ে রুশ সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক জানিয়েছে, সোচির ক্রাসনোদার ক্রাই থেকে স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ২০ মিনিটে উড্ডয়নের ২০ মিনিট পরই বিমানটির সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। তখন বিমানটি কৃষ্ণ সাগরের ওপর দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল।

সামরিক বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে এ বিষয়ে তল্লাশি অভিযান তদারকি করছেন রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শইগু। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ জানিয়েছেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে এ বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। তাকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সকল আপডেট জানানো হচ্ছে।

তল্লাশি অভিযানে কয়েকটি কেএ-৩২ ও একটি মিগ-৮ হেলিকপ্টার এবং বেশ কয়েকটি যুদ্ধ জাহাজ অংশ নেয় বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। সূত্রের বরাত দিয়ে স্পুটনিক জানিয়েছে, উদ্ধারকারীরা সোচির কৃষ্ণ সাগরের এক কিলোমিটার ভেতরে বিমানটির ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেয়েছেন। তবে আরোহীদের হতাহতের বিষয়ে এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

এর আগে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে সে দেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম আরটি (রাশিয়ান টেলিভিশন) জানিয়েছে, টিইউ-১৫৪ বিমানটির বেশিরভাগ যাত্রীই ছিলেন সামরিক সংগীত দল আলেক্সান্দ্রভ এনসেম্বল-এর সদস্য। ওই সংগীত দলের ৯০ জন সদস্য দু’টি রুশ সামরিক বিমানে করে সিরিয়ার লাতাকিয়ায় যাওয়ার কথা ছিল। এছাড়াও বিমানে ছিলেন কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তা এবং নয়জন সাংবাদিক।

সূত্র: আরটি, স্পুটনিক।






মন্তব্য চালু নেই