মেইন ম্যেনু

তারা যুদ্ধের সময় কলকাতায় সিনেমা দেখেছে: অলি

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপির) সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, “আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধাদের দল নয়। আজকে যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে বেড়াচ্ছে, তারা যুদ্ধের সময় কলকাতায় গিয়ে সিনেমা দেখে সময় কাটিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে আওয়ামী লীগের কোনো অবদান নেই।”

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলা এলডিপির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বাধীনতার ঘোষণা নিয়ে বিতর্কের কোনো অবকাশ নেই্- এমন দাবি করে অলি আহমদ বলেন, “শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সংগ্রামের জন্য জাতিকে প্রস্তুত করেছিলেন। তবে আওয়ামী লীগ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত ছিল না। ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ রাতে দেশবাসীর ওপর পাকিস্তানি বাহিনীর হামলার পর আওয়ামী লীগের কোনো নেতা দেশে ছিলেন না। তারা ভারতের বিভিন্ন শহরে নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছিলেন।”

কর্নেল অলি বলেন, “মানুষ যখন দিশেহারা, তখন জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে অষ্টম বেঙ্গল রেজিমেন্টকে নিয়ে আমরা চট্টগ্রাম থেকে প্রথমে বিদ্রোহ করি। ২৭ মার্চ কালুরঘাট বেতারকেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন জিয়া। এর পরই চতুর্থ বেঙ্গল রেজিমেন্ট, দ্বিতীয় বেঙ্গল রেজিমেন্ট, প্রথম বেঙ্গল রেজিমেন্ট, তৃতীয় বেঙ্গল রেজিমেন্ট যথাক্রমে মার্চের ২৯ ও ৩০ তারিখে বিদ্রোহ করে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে।”

এলডিপির সভাপতি বলেন, “যুদ্ধকালীন গঠিত ১১টি সেক্টর ও প্রতিটি সাব সেক্টরের দায়িত্বে ছিলেন সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তারা। আওয়ামী লীগের নেতারা তখন অস্থায়ী সরকার গঠন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে আওয়ামী লীগের কোনো অবদান নেই।”

এলডিপি নেতা মাহমুদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা এলডিপির সভাপতি অ্যাডভোকেট কফিল উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী, এলডিপি নেতা জসিম উদ্দিন ও এহছানুল কবির প্রমুখ।

সম্মেলনে মাহমুদুল হক চৌধুরীকে সভাপতি ও জসিম উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে সাতকানিয়া উপজেলা এলডিপির কমিটি ঘোষণা করেন অলি আহমদ।






মন্তব্য চালু নেই