মেইন ম্যেনু

তাবলীগ জামাতের ২৪ কর্মী আটক

তাবলীগ জামাতের ২৪ কর্মীকে আটক করেছে রমনা থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে কাকরাইল মসজিদ থেকে তাদেরকে আটক হয়। শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন রমনা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এমদাদ।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে বেশকিছু তাবলীগ কর্মী মাগরিব নামাজের পর মসজিদের ভেতরে লিফলেট বিলি করতে থাকে। একপর্যায়ে কাকরাইল মসজিদের আমির ওয়াসিফুল ইসলামের লোকজন তাদের মসজিদের ভেতর আটক করে। এশার নামাজের পর রমনা থানায় খবর দিলে পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে আসে।

আটকের কারণ জানতে চাইলে এমদাদ বলেন, ‘তারা কাকরাইল মসজিদ ও তাবলীগ জামাতের আমিরের বিরুদ্ধে লিফলেট বিলি করছিল। তাবলীগ জামাতের মুরুব্বীদের অভিযোগ, তারা আসন্ন বিশ্ব ইজতেমাকে বাধাগ্রস্ত করতে এমন ঘটনা ঘটাচ্ছে।’

তবে লিফলেট বিতরণকারীদের একজন মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই আমির ওয়াসিফুল ইসলামের বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলাম। যখনই আমরা তাদের অনিয়ম নিয়ে কথা বলি, তখনই তারা আমাদের ওপর হামলা চালায়। মিথ্যা অভিযোগ করে পুলিশি হয়রানী করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত রাতে মাগরিগের নামাজের পর আমরা ৪০ জনের মতো কর্মী লিফলেট বিলি করছিলাম কাকরাইল মসজিদে। এই লিফলেটগুলোতে ওয়াসিফুল ইসলামের বিভিন্ন আর্থিক অনিয়ন ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডের তথ্য উপাত্ত ছিল। এই লিফলেট বিতরণের সময় ওয়াসিফুল ইসালামের অনুসারীরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। মসজিদের ভেতরেই নামাজ শেষে মারধর করে। এসময় ২৪ জনকে দ্বিতীয় তলায় ধরে নিয়ে গিয়ে পুনরায় মারধর করে। সাধারণ মুসল্লিরা বাধা দিলে তারা আরো হিংশ্র হয়ে ওঠে।’ পাশাপাশি তাদেরকে আমিরের অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা না বলার জন্য আর্থিক প্রলোভন দেখানো হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মারধরের ঘটনার সত্যত্যা নিশ্চিত করে এসআই এমদাদ বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে তাদেরকে ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে সুনির্দিষ্ট অভিযোগে মামলা হলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’






মন্তব্য চালু নেই