মেইন ম্যেনু

ছবির সেই যুবক সাব্বির নয়

২০১৪ সালের ১৪ এপ্রিল কক্সবাজারের সেন্টমার্টিনের সাগর থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন ঢাকার আহসানুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাব্বির। ঘটনা পরবর্তী সময়ে অনেক খোঁজ করা সত্ত্বেও পাওয়া যায়নি সাব্বিরকে। তবে সম্প্রতি সাব্বিরের মা সেলিনা আক্তার একটি আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থায় প্রকাশিত অবৈধ অভিবাসীদের ছবি থেকে একজনকে নিজের সন্তান বলে দাবি করেন। এই দাবির পরই মূলত গণমাধ্যম থেকে শুরু করে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন মহলে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। এমনকি বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকেও এবিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হয়।

কিন্তু আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে যে ইন্দোনেশিয়ায় উদ্ধার হওয়া অবৈধ অভিবাসীর নাম আবদুল হাকিম এবং তিনি বাংলাদেশের কক্সবাজারের বাসিন্দা। সাব্বিরের মা-বাবার দাবির প্রেক্ষিতে ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশে ছুটে গিয়েছিলেন ওই ছবিটির আলোকচিত্রী এবং সেখানে গিয়ে তিনি খুঁজে বের করেন আলোচিত সেই যুবককে। পরবর্তীতে সাব্বিরের পরিবারকে জানিয়ে দেয়া হয় যে, উদ্ধারকৃত যুবক তাদের সন্তান সাব্বির নয়।

শনিবার এএফপির বাংলাদেশ শাখার ব্যুরো প্রধান শফিকুল আলম তার ফেসবুকে লেখেন, ‘দুঃখের সহিত বলতে হচ্ছে, আমাদের আলোকচিত্রী আচেহ থেকে নিশ্চিত করেছে যে উদ্ধারকৃত যুবক দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ শিক্ষার্থী সাব্বির নয়। তিনি কক্সবাজারের আবদুল হাকিম। আমি নিজে তার এবং তার বন্ধু মিজানুর রহমানের সাক্ষাতকার নিয়েছি।’

উল্লেখ্য, গত বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর বন্ধুদের সঙ্গে সেন্টমার্টিনে বেড়াতে গিয়েছিলেন সাব্বির ও তার বন্ধুরা। দ্বীপে অবস্থান করার সময় সাগরে গোসল করতে নামলে সঙ্গে থাকা পাঁচজন বন্ধুর সঙ্গে নিখোঁজ হয়েছিলেন সাব্বির।

আরো পড়ুন :

নিখোঁজ সেই বাংলাদেশি ছাত্র ইন্দোনেশিয়ায়?






মন্তব্য চালু নেই