মেইন ম্যেনু

চলেই গেলেন অন্তঃসত্ত্বা চম্পা

সাত দিন মুমূর্ষু অবস্থায় থেকে অবশেষে চলেই গেলেন কুষ্টিয়ার মিরপুর এলাকার অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ চম্পা আক্তার (২৫)।

বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা এই নারীকে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেছেন।

গত বৃহস্পতিবার পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ ঘুমন্ত অবস্থায় ঘরে আগুন দিলে চম্পা দগ্ধ হন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতেই কুষ্টিয়া থেকে এ গৃহবধূকে ঢাকায় এনে বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের ৫৮ শতাংশই পুড়ে গেছে।

চম্পার স্বামী মো. শাহিনুর বলেন, ‘সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চিকিৎসকরা চম্পাকে মৃত ঘোষণা করেন। গত সাত দিন মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট করেছেন সন্তান সম্ভবা শারমিন।’

শাহিনুরের দাবি, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আগুনের ঘটনাটি ঘটে। শাহিনুরের চাচা মিনহাজ উদ্দিন, রহিস উদ্দিন ও রইসউদ্দিনের ছেলে রিপন তার ঘরে আগুন দেয়। প্রতিবেশীদের চিৎকারে ঘুম ভাঙলে শাহিনুর তিন বছরে বয়সের একমাত্র মেয়ে শারমিনকে নিয়ে বের হতে পারলেও স্ত্রীকে বের করতে পারেননি।

এ ঘটনায় বুষ্টিয়ার মিরপুর থানায় মামলা করেন নিহতের স্বামী। তবে আসামিদের এখনো গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই