মেইন ম্যেনু

কামড় দিয়ে নির্বাসনে যারা

বিশ্বকাপ এখন লুইস সুয়ারেজময়। মাঠে আলো ছড়াচ্ছেন লিওনেল মেসি আর নেইমার। আর মাঠের বাইরে উরুগুয়ের ‘ব্যাডবয়’ সুয়ারেজ। কারণ, বিশ্বকাপে উরুগুয়ের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ইতালির ডিফেন্ডার জর্জিও চেলিন্নিকে কামড় দিয়ে নন্দিত নায়ক থেকে খলনায়কে পরিণত লিভারপুল এই তারকা। ফুটবলযজ্ঞের সবচেয়ে বড় শাস্তি এখন সুয়ারেজের মাথায়। চার মাস সব ধরনের ফুটবল থেকে দূরে থাকতে হবে তাকে। এমনকি স্টেডিয়ামেও প্রবেশ করতে পারবেন না অলরেডদের কিং সুয়ারেজ। তবে সুয়ারেজই শুধু কামড় দিয়ে নির্বাসনে যাচ্ছেন না। বিভিন্ন খেলার আরো কিছু পরিচিত মুখ এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। কারা তারা? আসুন জেনে নেই-

লুইস সুয়ারেজ
ইতালি-উরুগুয়ের মধ্যে চলছিল ফুটবল বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডের খেলা। উরুগুয়ের ডিয়েগো গোডিনের দেয়া জয়সূচক গোলের কয়েক মুহূর্ত আগেই ইতালির জিওর্গিও কিয়েলিনিকে চেপে ধরতে দেখা গেলো কাঁধ, আর প্রতিপক্ষ তারকা খেলোয়াড় লুইস সুয়ারেজকে চেপে ধরতে দেখা গেলো দাঁত। এরপরই কিয়েলিনি তার জার্সি খুলে কাঁধে একটা সুস্পষ্ট দাগ দেখায় রেফারিকে। কারণ কিয়েলিনিকে কামড়ে দিয়েছেন সুয়ারেজ।

সুয়ারেজের এমন কামড়কাণ্ড এটাই প্রথম নয়। ২০১৩ সালে লিভারপুলের হয়ে খেলার সময় প্রিমিয়ার লিগের একটি ম্যাচে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে কামড় দেবার দায়ে দশ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয় তাকে। তারও আগে ২০১০ সালে আয়াক্সের অধিনায়ক থাকার সময়েও পিএসভি আইন্ডহোভেনের মিডফিল্ডার ওটম্যান ব্যাকালের ঘাড়ে কামড়ে সাত ম্যাচ নিষিদ্ধ ছিলেন সুয়ারেজ।

শহীদ আফ্রিদি:
পাকিস্তান ক্রিকেট তারকা শহীদ আফ্রিদ কোনো সতীর্থ বা প্রতিপক্ষকে কামড়ে দেননি। কলঙ্কের সাথে তার নামটা জড়িয়ে গেছে বল টেম্পারিং করতে বলে দাঁত বসানোয়। ২০১০ সালের জানুয়ারি মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে বলে রিভার্স সুইং পেতে এই কীর্তি গড়েছিলেন ‘বুমবুম’ খ্যাত পাক এই অলরাউন্ডার। এজন্য আইসিসি তাকে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ করেছিল।

মাইক টাইসন:
১৯৯৭ সালে বিশ্ব হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়নশিপের তৃতীয় রাউন্ডে প্রতিদ্বন্দ্বী ইভান্ডার হোলিফিল্ডের কানে কামড় দেয়ার জন্য নির্বাসিত হয়েছিলেন মাইক টাইসন।

মিগুয়েল অলিভো:
চলতি বছরের মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রের বেসবল তারকা মিগুয়েল অলিভো কামড় দিয়ে ছিঁড়ে নেন সতীর্থ আলেক্সিজ গুয়োরোরের কান। ফলে তার দল তাকে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ করে।

জোহান লে রু:
১৯৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার রাগবি তারকা জোহান শন প্যাট্রিকের কানে কামড় বসিয়েছিলেন জোহান লে রু। জোহানেসবার্গে ঘটেছিল এই ঘটনা। এজন্য ১৮ মাসের নিষেধাজ্ঞা বহন করতে হয়েছিল জোহানেসবার্গ হ্যারিকেনের এই তারকাকে।






মন্তব্য চালু নেই