মেইন ম্যেনু

এবার সৌদি মসজিদে নারীদের যৌন হয়রানি!

সৌদি আরবের একটি মসজিদে নারীদের যৌন হয়রানি করার অভিযোগে এক পুরুষকে আটক করা হয়েছে। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি মক্কা নগরীর জারানা মসজিদে ‘বোরকা’ পরে নারীদের যৌন হয়রানি করে। নামাজের জন্য অজু করতে গিয়ে সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তির হাতে নারীরা যৌন হয়রানির শিকার হয়।

তবে ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

জারানা মসজিদের শৌচাগারে বোরকা পরে ‘এক নারী’ ঢুকেই অস্বাভাবিক আচরণ করছে বলে অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করে। পরে দেখা গেলে বোরকার আড়ালে থাকা লোকটি আসলে পুরুষ।

ধর্মীয় পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষ মসজিদের ওপর নজরদারি শুরু করে। দেখা যায় ছদ্মবেশি ওই ‘নারী’ অস্বাভাবিক আচরণের বিষয়টি কর্তৃপক্ষের কাছে ধরা পড়ে। মসজিদের কাছে পার্ক করে রাখা কালো কাঁচে ঢাকা একটি গাড়িতে ওঠে ওই নারী বোরকা খুলে ফেলছে। সেসময় আইন প্রয়োগকারী বাহিনীর সদস্যরা তাকে দ্রুত আটক করে এবং বোরকাটি জব্দ করে।

গত রবিবার এ ঘটনা প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। আবু তারেক নামে একজন লিখেছেন, ‘তাকে কারাগারে আটক রাখা এবং শৌচাগার পরিষ্কারের কাজ দেওয়া হোক। যাতে সে আচার-আচরণ শিখতে পারে।’

বু মাশারি নামে একজন বলেছেন, ‘তাকে সামরিক বাহিনীর কাছে পাঠিয়ে দেওয়া উচিত। যাতে করে মসজিদ অবমাননা করে সেখানে নারী হয়রানির বদলে কিভাবে দেশ ও দেশের মানুষকে রক্ষা করা তা শিখতে পারে।’

আহমাদ নামে একজন বলেছেন, ‘যৌন হয়রানি জঘন্য কাজ। আর মসজিদের ভেতর এমন কাজ করা কখনই মেনে নেওয়া যায় না। এ ধরনের কাজ করার জন্য অবশ্যই তাকে সাজা পেতে হবে।’ সূত্র: দ্য ন্যাশন।






মন্তব্য চালু নেই