মেইন ম্যেনু

উত্তরায় গুলি করে কলেজছাত্রীকে অপহরণ, নিহত-১

রাজধানীর উত্তরায় গুলি করে ফাতেমা আক্তার (১৯) নামের এক কলেজছাত্রীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। এ সময় এক লিটন (৩২) নামের নিরাপত্তাকর্মী বাধা দিলে তাকে গুলি করে এবং হবু স্বামী মাহফুজুল হককে চাপাতি দিয়ে ডান হাতে কুপিয়ে জখমও করে সন্ত্রাসীরা।

নিরাপত্তাকর্মীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয় এবং হবু স্বামীকে উত্তরার সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নিহত ব্যক্তি লিটন উত্তরা ৪ নং সেক্টরের ৩ নং রোডের ৯ নম্বর বাসার নৈশ প্রহরী, অপহৃত কলেজছাত্রী ফাতেমা গাজীপুরের কড্ডা এলাকার সাইফুল ইসলাম মোল্লার মেয়ে। এবং আহত মাহফুজুল হক উত্তরা ৫ নং সেক্টরের ৪/এ নং রোডের ১৯ নম্বর বাড়ির ফজলুল হকের ছেলে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে রাজধানীর উত্তরা ৪ নং সেক্টরের ৩ নম্বর রোডের ৬ নম্বর বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে এবং ঘটনাস্থলের বিভিন্ন জায়গায় রক্তের স্তূপ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১১ টার দিকে ২/৩ জনের চিৎকার শুনে সামনে গিয়ে দেখে, একটি এলিয়ন গাড়ি থেকে কয়েকজন অপহরণকারী সশস্ত্র অবস্থায় একটি মেয়েকে গাড়িতে তুলছে। এ সময় তাদের সাথে থাকা এক যুবক বাধা দিলে তার হাতে চাপাতি দিয়ে কোপ দিয়ে আহত করে।

তাদের আত্মচিৎকার শুনে পাশের বাসার এক নৈশ প্রহরী বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা তার কোমড়ে গুলি করে। পরে নৈশ প্রহরীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এবং যুবককে স্থানীয় এক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে উত্তরা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ সাহেদ ফেরদৌস রানা জানান, উক্ত ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত চলছে।কয়েকজনকে এরইমধ্যে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আমরা আশা করি অতি দ্রুত অপহরণকারীদের অপহৃতা উদ্ধার করতে সক্ষম হবো।






মন্তব্য চালু নেই