মেইন ম্যেনু

‘আপনি আমার ধর্ষণেরও যোগ্য নন’

ব্রাজিলে চলতি মাসের গোড়ার দিকে পার্লামেন্ট অধিবেশন চলাকালে সরকার দলীয় নারী সদস্য মারিয়া ডো রোসারিও নুনেসকে উদ্দেশ্য চরম অবমাননাকর উক্তি করেন এক বিরোধী দলীয় কংগ্রেস সদস্য। জায়ির বোলসোনারো নামের ওই সদস্য বলেছিলেন,‘তোমার মত বিশ্রী নারীকে আমি ধর্ষণ করব না। তুমি আমার ধর্ষণেরও যোগ্য নও।’

তার এই অপমানজনক কটুক্তিকে কেন্দ্র করে সামালোচনার ঝড় ওঠেছে গোটা দেশ জুড়ে। তার পদত্যাগ দাবি করেছে সে দেশের নারী এবং মানবাধিকার সংগঠনগুলো। এ বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে স্বয়ং জাতিসংঘ।

এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট দিলমা রিসৌফের ঘনিষ্ঠ সহযোগী এবং সাবেক মানবাধিকারমন্ত্রী রোসারি0tt7wrv9 ‘আপনি আমার ধর্ষণেরও যোগ্য নন’ও নুনেস।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসের মাত্র একদিন আগে ৯ ডিসেম্বর পার্লামেন্টে চলছিল ধর্ষণ এবং যৌনতা সংক্রান্ত এক বিতর্ক। বিতর্কের এক পর্যায়ে ফ্লোর নেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা এবং বিরোধী দলীয় কংগ্রেস সদস্য ৫৯ বছরের জায়ির বোলসোনারো। তিনি নারী সদস্য মারিয়া ডো রোসারিও নুনেসকে লক্ষ্য করে বলেন,‘ থামুন, মারিয়া ডো রোসারিও!মাত্র কয়েক দিন আগে আপনি আমকে ধর্ষক বলেছিলেন। কিন্তু আপনি আমার ধর্ষণেরও যোগ্য নও। আপনার মত বিশ্রী নারীকে আমি ধর্ষণও করবনা।’

তার এ বক্তব্যের পর বিক্ষোভে ফেটে পড়ে গোটা দেশ। সেখানকার সামাজিক সাইটগুলোতে এখনো তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে চলেছে ব্রাজিলিয়ার বিক্ষুব্দ লোকজন। তার এ মন্তব্যকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে সমালোচনা করেছে জাতিসংঘ।

12t9wv6j ‘আপনি আমার ধর্ষণেরও যোগ্য নন’তবে নিজের এ বক্তব্যের জন্য অনুতপ্ত নন বোলসোনারো। এ নিয়ে তিনি মারিয়ার কাছে কোনোরকম দু:খ প্রকাশ করবেন না বলেও জানিয়েছেন। উল্টো স্থানীয় এক পত্রিকায় দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি আবারো মারিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন‘আসলে, তিনি আমার ধর্ষণ করারও যোগ্য নন। কারণ তিনি দেখতে খুবই বিশ্রী। তিনি তো আমার টাইপ নন। আমি কখনোই তাকে ধর্ষণ করবনা।’ তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, মারিয়া তাকে ধর্ষক বলে সম্বোধন করায় তিনি এই পার্লামেন্ট এসব মন্তব্য করেছেন। তবে তাকে কোন পরিস্থিতিতে ধর্ষক বলা হয়েছিল এ বিষেয় তিনি কিছুই বলেননি।

তিনি ‘ফোলহা ডে পাউলো’  পত্রিকাকে আরো বলেছেন,‘তিনি আমাকে মৌখিকভাবে আক্রমণ করেছেন। আমি তো ধর্ষক নই। আর যদি ধর্ষণ করিও তার মত নারীকে করব না।’

জায়ির বোলসোনারো বরাবরই  ব্রাজিলের সমাজতান্ত্রিক নেতাদের তীব্র ভাষণায় সমালোচনা করে থাকেন। জিহ্বার ধারের জন্য ব্রাজিলের এই বিরোধী নেতার দুর্নাম রয়েছে।

ব্রাজিলে ধর্ষণও কোনো নতুন ঘটনা নয়। দেশটিতে  প্রতিদিন ১৩৭টি যৌন নিপীড়ণের ঘটনা ঘটে থাকে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই