মেইন ম্যেনু

২৮ কোম্পানিকে অ্যান্টিবায়েটিক উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ

দেশের ২৮টি ওষুধ কোম্পানির অ্যান্টিবায়েটিক (পেনিসিলিন, হরমোন, অ্যান্টি ক্যান্সার) উৎপাদন আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আদালতের নির্দেশের পর এসব ওষুধ কোম্পানির অ্যান্টিবায়েটিক উৎপাদন বন্ধ হয়েছে কি না—তা আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্যসচিব, শিল্পসচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকসহ পাঁচজনকে প্রতিবেদন আকারে হাইকোর্টে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সোমবার এক আবেদনের পূর্ণাঙ্গ শুনানি শেষে বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট সমন্বয়ে দ্বৈত বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন।

আদালতে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে আবেদনটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

এর আগে হাইকোর্ট এ বেঞ্চটির নির্দেশে দেশের ২০টি কোম্পানির সব ধরনের ওষুধ ও ১৪টি কোম্পানির সব ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদনও বন্ধ ঘোষণার রায় দেওয়া হয়। মানসম্মত ওষুধ উৎপন্ন না করায় এ সব কোম্পানির লাইসেন্সও বাতিল করে দেন হাইকোর্ট।

উৎপাদন বাতিল হওয়া আগের ২০টি ওষুধ কোম্পানি হলো- এক্সিম ফার্মাসিউটিক্যাল, এভার্ট ফার্মা, বিকল্প ফার্মাসিউটিক্যাল, ডলফিন ফার্মাসিউটিক্যাল, ড্রাগল্যান্ড, গ্লোব ল্যাবরেটরিজ, জলপা ল্যাবরেটরিজ, কাফমা ফার্মাসিউটিক্যাল, মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যাল, ন্যাশনাল ড্রাগ, নর্থ বেঙ্গল ফার্মাসিউটিক্যাল, রিমো কেমিক্যাল, রিদ ফার্মাসিউটিক্যাল, স্কাইল্যাব ফার্মাসিউটিক্যাল, স্পার্ক ফার্মাসিউটিক্যাল, স্টার ফার্মাসিউটিক্যাল, সুনিপুণ ফার্মাসিউটিক্যাল, টুডে ফার্মাসিউটিক্যাল, ট্রপিক্যাল ফার্মাসিউটিক্যাল এবং ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড।

অ্যান্টিবায়েটিক ওষুধ উৎপাদনের অনুমতি বাতিল করা ১৪টি কোম্পানি হলো- আদ-দ্বীন ফার্মাসিউটিক্যাল, আলকাদ ল্যাবরেটরিজ, বেলসেন ফার্মাসিউটিক্যাল, বেঙ্গল ড্রাগস, ব্রিস্টল ফার্মা, ক্রিস্ট্যাল ফার্মাসিউটিক্যাল, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যাল, মিল্লাত ফার্মাসিউটিক্যাল, এমএসটি ফার্মা, অরবিট ফার্মাসিউটিক্যাল, ফার্মিক ল্যাবরেটরিজ, পনিক্স কেমিক্যাল, রাসা ফার্মাসিউটিক্যাল এবং সেভ ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই