মেইন ম্যেনু

সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন রেখে চূড়ান্ত হচ্ছে ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ আইন

খাদ্যদ্রব্যে ফরমালিনের ব্যবহার রোধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে শিগগিরই ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ আইন চূড়ান্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

রোববার দুপরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে যুক্তরাষ্ট্র সফর বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। এর আগে ১০ জুন পাঁচদিনের সফরে যুক্তরাষ্ট্র যান বাণিজ্যমন্ত্রী।

এসময় যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পণ্যের অগ্রাধিকার সুবিধা বা জিএসপি ফিরিয়ে না দিতে বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান ও শ্রমিক নেতা রায় রমেশ ‘ষড়যন্ত্রমূলক’ চিঠি পাঠিয়েছে বলে দাবি করেন মন্ত্রী। সফরকালে ষড়যন্ত্রের কিছু কাগজপত্র নিজ চোখে দেখেছেন বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানান তিনি।

এ ধরনের তৎপরতার বিরুদ্ধে এবং জিএসপি ফিরে পেতে সরকার কোনো পদক্ষেপ নেবে কিনা এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘যারা দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে সরকার। সে যেই হোক। তবে জিএসপি বিশ্বের কোনো দেশে এখন বলবৎ নাই। গত বছর জুলাই মাসে যুক্তরাষ্ট্রের এ সংক্রান্ত কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি বিষয়ে আমাদের অনেক শর্ত দিয়েছে। যার বেশিরভাগ আমরা পূরণ করেছি। এ বিষয়ে আমরা একটি প্রতিবেদন দিয়েছি। বাকি শর্তগুলোও আশাকরি শিগগিরই পূরণ হবে। তখন আর এ সুবিধা পেতে সমস্যা থাকবে না। তবে শর্ত পূরণের পরেও যদি সুবিধা না পাওয়া যায় বা নতুন কোনো শর্ত আসে তাহলে এটিকে রাজনৈতিক কারণ ছাড়া অন্য কিছু বলা যাবে না।’

ফরমালিন আইন সম্পর্কে তোফায়েল জানান, ফরমালিনের অপব্যবহার রোধে সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে ২০১৩ সাল মন্ত্রিসভা এ সংক্রান্ত আইনের খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিলেও এখনো আইনটি চূড়ান্ত হয়নি। তবে দ্রুত এর বাকি কাজ শেষ হবে। আশা করছি শিগগির কাজ শেষ করে মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করা হবে। আইনটি পাস হলে ফরমালিনের অপব্যবহার রোধ করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

নতুন আইনে ফরমালিনকে নতুনভাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং সায়েন্স ল্যাবরেটরির শিক্ষকদের মতামত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ টি এম মুর্তজা রেজা।






মন্তব্য চালু নেই