মেইন ম্যেনু

সংসদে জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধের দাবি

কানাডার ফেডারেল আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন বলার পর জাতীয় সংসদে অবিলম্বে জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছেন সংসদ সদস্যরা।

এসময় সংসদ অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে উপস্থিত সংসদ সদস্যরা দাবি করে বলেন, বিএনপি জামায়াত ও জঙ্গীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়, আন্দোলনের নামে নিরীহ মানুষকে হত্যা করে, তাই তাদের বিচার হওয়া উচিত।

বিদেশের মাটিতে বিএনপিকে ‘সন্ত্রাসী দল’ অভিহিত করায় বাংলাদেশের মাটিতে দলটির নিবন্ধন বাতিলের দাবি জানান ক্ষমতাসীন জোটের শরিক দল তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি।

নজিবুল বশর মাইজাভান্ডারি বলেন, ধর্মের কল বাতাসে নড়ে। কারণ উপরে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আছেন। ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে খালেদা জিয়ার নির্দেশে অগ্নি সন্ত্রাসের মাধ্যমে প্রায় দেড়’শ মানুষকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। আমরা বারবারেই বলেছি বিএনপি সন্ত্রাসী দল। জামায়াত-শিবির এবং যুদ্ধাপরাধীদের যারা প্রশ্রয় দেয়, যারা রাষ্ট্রবিরোধী শক্তিদের প্রশ্রয় দেয়, তারা অবশ্যই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যে অগ্নি সন্ত্রাস করেছেন, তাই আজকে বিদেশের মাটিতে তাদেরকে একটি সনদ ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। তারা তার পুরস্কার পেয়েছে এবং তারা সমগ্র বিশ্বে সন্ত্রাসী দল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। বিদেশের মাটিতে বিএনপির নাম নিলে তাদের কোন লোককে আশ্রয় দেয়া হচ্ছে না।

স্পিকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনার মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করি, অবিলম্বে জামায়াত শিবিরকে নিষিদ্ধ করা হোক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বারবার বলেছেন, বাংলার মাটিতে অগ্নি সন্ত্রাসের বিচার হবে এবং এটা আমরা বিশ্বাস করি। শেখ হাসিনা এ পর্যন্ত যা বলেছেন, প্রতিটি কথা অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছেন।

১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে তারা যে ধ্বংসাত্মক কাজ করেছিলো আগামী নির্বাচনের আগে আবারো করতে পারে বলেও অাশঙ্কা প্রকাশ করেন সংসদ সদস্যরা।






মন্তব্য চালু নেই