মেইন ম্যেনু

লিটন হত্যায় জাপার সাবেক এমপি কাদের খানের দায় স্বীকার

সংসদ সদস্য (এমপি) মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন সাবেক এমপি ডা. আবদুল কাদের খান।

মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় গাইবান্ধার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মইনুল হাসান ইউসুবের আদালতে এ জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

একই সঙ্গে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া আবদুল কাদের খানের গাড়িচালক আবদুল হান্নান ও তার বাসার তত্ত্বাবধায়ক শাহিন মিয়া ও মেহেদী।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার (এসপি) আশরাফুল ইসলাম গণমাধ্যমের কাছে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তার হওয়া সাবেক এমপি ডা. আবদুল কাদের খান জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য। তার মূল বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপড়হাটি ইউনিয়নের পশ্চিম ছাপড়হাটি খানপাড়া গ্রামে। ২০০৮ সালে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

পেশায় চিকিৎসক আবদুল কাদের খান বগুড়া শহর থেকে ‘দৈনিক উত্তরের খবর’ নামে একটি পত্রিকাও প্রকাশ করছেন।

এসপি আশরাফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা এমপি হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন। তাই ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেয়ার জন্য তাদের আদালতে পাঠানো হয়। আদালত ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণ করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পরে কড়া পুলিশি নিরাপত্তায় রাত পৌনে নয়টার দিকে আসামিদের জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে বিকেল পাঁচটার দিকে বগুড়া শহরের নিজ বাসা থেকে গ্রেপ্তার হন ডা. আবদুল কাদের খান। পরে তাকে গাইবান্ধায় নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে স্থানীয় সাংবাদিকদের অভিযোগ, পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের জানানো হয়েছে কাদের খানকে বুধবার আদালতে হাজির করা হতে পারে। আবার এও বলা হয়েছে, বুধবার পুলিশের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হবে। সেখানে এ ঘটনা বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে ডা. আবদুল কাদের খান আর অংশ নেননি। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতা মনজুরুল ইসলাম লিটন এমপি নির্বাচিত হন। গেল বছরের ৩১ ডিসেম্বর মনজুরুল ইসলাম নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন।






মন্তব্য চালু নেই