মেইন ম্যেনু

রাণীনগরের চাল মান সম্পন্ন হলেও পর্যাপ্ত বরাদ্দ না থাকায় চাতাল মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে

নওগাঁ-৬ (রানীনগর-আত্রাই) আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম এমপি বলেছেন, চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে রাণীনগরে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদন হলেও গুদাম ঘড়ের স্বল্পতা, সরকারি গুদামে চাল ক্রয়ের পর্যাপ্ত বরাদ্দ না পাওয়ায় এই এলাকার কৃষক ও চাতাল মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। চালের মান জাত ভেদে ভাল হওয়ায় এই উপজেলার চাল স্থায়ী চাহিদা পূরণ শেষে দেশের বিভিন্ন মোকাম সহ সেনা বাহিনীর খাদ্য তালিকায় এখানকার চালের সুনাম রয়েছে।

গতকাল রবিবার বেলা ১১ টায় উপজেলা খাদ্য গুদামে ইরি-বোরো ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান-১৫ইং এর শুভ উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা গুলো বলেন।

রানীনগর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রন অফিসার মোহাজের হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আল-ফারুক জেমস্, রাণীনগর এলএসডি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শওকত জামিল প্রধান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন, চাউল কল মালিক সমিতির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন খান বাবলু, সাধারণ সম্পাদক শীতানাথ ঘোষ, যুগ্ম সম্পাদক আসাদুল শাকিদার, উপজেলা বিভিন্ন স্তরের চাল ব্যবসায়ী, কৃষক, সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এবছর রাণীনগরে ধান উৎপাদন হয়েছে ১লক্ষ ১৫হাজার ১শ’ ৪৪ মেট্রিক টন, যা চাল আকারে ৭৬ হাজার ৭শ’ ৬২ মেট্রিক টন। কিন্তু সরকার রাণীনগর উপজেলায় ক্রয় করবে ৪হাজার ৩শ’ ৬৮ মেট্রিক টন চাল ও ৩শ’ ৯২ মেট্রিক টন ধান যা সরাসরি কৃষক ও চাতাল মালিকদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই