মেইন ম্যেনু

মানহানি মামলা : ফের প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পেছাল

আওয়ামী লীগ নেতাদের কুলাঙ্গার এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কুলাঙ্গারদের নেত্রী বলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মানহানি মামলায় প্রতিবেদন জমা দেয়ার তারিখ ফের পিছিয়েছেন আদালত। আগামী ১৪ ডিসেম্বর প্রতিবেদন দাখিলের নতুন দিন ধার্য করা হয়েছে। এর আগেও দুই দফা প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য থাকলেও পুলিশ প্রতিবেদন জমা দেয়নি।

বৃহস্পতিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতাউল হক এ নির্দেশ দেন।

এদিন মামলার বাদী বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকী আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকার সিএমএম আদালতে দায়ের করা মামলাটির প্রতিবেদন গত ২০ অক্টোবর দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেলেন আদালত। কিন্তু ওই দিন পুলিশ প্রতিবেদন না দেয়ায় বিচারক আতাউল হক আজ বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেন। আজও প্রতিবেদন জমা না দেয়ায় বিচারক নতুন ওই দিন ধার্য করেন।

গত ৮ অক্টোবর সকালে বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকীর পক্ষে অ্যাডভোকেট নূরে আলম উজ্জল মামলাটি দায়ের করেন।

সেদিনও বেলা ১টায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এরফান উল্লাহ অভিযোগ পর্যালোচনা করে ২০ অক্টোবরের মধ্যে পল্টন থানার ওসিকে (তদন্ত) প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ২৪ আগস্ট লন্ডনের কুইনমেরি ইউনিভার্সিটিতে তারেক রহমান এক আলোচনা সভায় ‘আওয়ামী লীগ নেতারা কুলাঙ্গার এবং শেখ হাসিনা কুলাঙ্গারদের নেত্রী’ বলে বক্তব্য দেন। যা গত ২৬ আগস্ট একটি পত্রিকায় ‘শেখ হাসিনা কুলাঙ্গারদের নেত্রী’ শিরোনামে প্রকাশিত হয়। গত ২ সেপ্টেম্বর তারেক রহমান বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ‘জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ছিলেন’ বলে দাবি করেন। যা বাদীর অভিযোগ মতে মানহানিকর ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

গত ৩ সেপ্টেম্বর ওই বক্তব্য বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় গুরুত্বপূর্ণ শিরোনামে প্রকাশিত হয়। একই দিনে দৈনিক জনকণ্ঠ পত্রিকার প্রথম পাতায় ‘মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকারকরা তেলবাজ’ শিরোনামে তারেক রহমানের আরো একটি বক্তব্য প্রকাশিত হয়। যা বাদীর মতে মানহানিকর ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।






মন্তব্য চালু নেই