মেইন ম্যেনু

নওগাঁর যুবক রাজুর পরিবেশবান্ধব যন্ত্র ‘বাড়ির বুড়ি’ উদ্ভাবন

নওগাঁয় পরিবেশবান্ধব যন্ত্র উদ্ভাবন করেছেন নওগাঁ শহরের হাট নওগাঁ মহল্লার যুবক এসএম ইব্রাহীম রাজু। চার বছর নিরলস পরিশ্রমের পর পরিবেশ দূষণকারী বিভিন্ন প্রকারের আবর্জনা থেকে পরিবেশকে রক্ষা করতে তিনি এই যন্ত্রটি উদ্ভাবন করেছেন। নাম দিয়েছেন ‘বাড়ির বুড়ি’। যন্ত্রটি আবর্জনা বা বর্জ্য গলিয়ে তরল অবস্থায় করে ফেলবে। সেই তরল শুকিয়ে হবে উন্নতমানের জৈব সার। বাড়ির বুড়ি যন্ত্রটি ছোট ও বৃহৎ আকারে এবং সহজ প্রযুক্তি ও স্বল্প ব্যয়ে তৈরি করা সম্ভব বলে তিনি জানান।

এ ছাড়াও এই যন্ত্রটি ব্যবহার করে বেকার যুবকরা কর্ম করতে পারবে। যন্ত্রটিতে বিদ্যুৎ খরচ কম হবে। সেই সাথে অল্প সময়ের মধ্যে বর্জ্য তরল করা সম্ভব। সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভা ছোট ও বড় আকারে এই যন্ত্রটি তৈরি করে নগর ও শহরকে আবর্জনামুক্ত করতে পারবে। এস এম ইব্রাহীম রাজু বলেন আমার এই যন্ত্রটি দিয়ে আবর্জনা থেকে যে তরল পদার্থ বের হবে তা দিয়ে হবে উন্নতমানের জৈব সার।

বাসা বাড়ি এবং হাট-বাজারে যেসব আবর্জনা হয় পরিবেশের জন্য তা ক্ষতিকর। উদ্ভাবিত যন্ত্রটি সেই আবর্জনা পরিবেশমুক্ত করবে এবং তা থেকে যে জৈব সার উৎপাদন হবে তা দিয়ে ফসলের উৎপাদন এবং জমির উর্বরতা বাড়বে। ইতোমধ্যে জৈবসার প্রয়োগ করে আশানুরূপ ফল পাওয়া গেছে। পাড়া-মহল্লায় বেকার যুবকরা এই যন্ত্রটি বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করে উপার্জন করতে পারবেন। কেননা অল্প খরচে ও সহজ প্রযুক্তিতে যন্ত্রটি বিভিন্ন সাইজে তৈরি করা যাবে। আর্থিক সঙ্গতির উপর তা নির্ভর করবে।

নওগাঁ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামছুল ওয়াদুদ জানান, এস এম ইব্রাহীম রাজুর প্রকল্পটি পরিবেশবন্ধব একটি প্রকল্প। এই প্রকল্পটি যদি সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা যায় তবে শহরের বিভিন্ন প্রকার আবর্জনা ও প্রতিদিনের গৃহস্থালির উচ্ছিষ্ট আবর্জনাকে কাজে লাগিয়ে যে জৈব সার তৈরি হবে তা ফসলী জমিতে প্রয়োগ করলে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে জমির উর্বরতা ও মাটির গুণাগুণ ভালো হবে।






মন্তব্য চালু নেই