মেইন ম্যেনু

দাফনের আড়াই বছর পরও লাশ অক্ষত !!

পটুয়াখালী : দাফনের আড়াই বছর পরও কবরের ভিতরে অক্ষত অবস্থায় দেখতে পাওয়া গেল লাশ। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মালয়েশিয়ায় কর্মরত অবস্থায় ২০১২ সনের ১৬ ডিসেম্বর উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের রজপাড়া গ্রামের মৃত আনসার শিকদারের ছেলে সুমন শিকদার(৩০)মারা যায়।

মৃত্যুর ১০ দিন পর ২০১২ সনের ২৬ ডিসেম্বর মালয়েশিয়া থেকে লাশ এনে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন দেওয়া হয়। গত ২৪ মে রবিবার মৃত সুমন শিকদারের ছেলে অপু শিকদার দেখতে পায় তার বাবার কবরের উপরের দুটি অংশের মাটি সরে গেছে। এঘটনা সে তার দাদীকে জানায়।

পরের দিন তার চাচা জাফর শিকদার সহ অন্যরা কবরটি ঠিক করার জন্য উদ্যোগ নিলে কবরের ভিতরে লাশ অক্ষত অবস্থায় রয়েছে দেখতে পায়। এ ঘটনাটি জানাজানি হলে দূর দূরন্ত থেকে শতশত মানুষ দেখার জন্য ভীড় করে। ঐ দিন আসরের নামাজের পর মাটি দিয়ে কবরটি ঠিক করা হয়।

মৃতের বড় ভাই জাফর শিকদার জানান, আল্লার লীলাখেলা না হলে এতদিন পর অক্ষত অবস্থায় লাশটি কেন দেখাবেন। সংবাদকর্মী বিশ্বাস শিহাব পারভেজ মিঠু বলেন, মৃতের লাশ সংরক্ষনের জন্য যে মেডিসিন ব্যবহার করা হয়েছে তা এখনও হয়ত কাজ করছে। তাই লাশটি না পঁচে সংরক্ষিত হয়ে আছে।






মন্তব্য চালু নেই