মেইন ম্যেনু

ঝালকাঠি রাজাপুরের যাত্রীবাহি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে গভীর খাদে ১০জন নিহত ॥ আহত ৪০

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার বিশ্বাসবাড়ি এলাকায় খুলনা থেকে বরিশালে গামী রুপম পরিবহন নামে একটি যাত্রীবাহি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পরে ড্রাইভার ও এক দম্পত্তিসহ ১০জন নিহত হয়েছে। আহত অন্তত ৪০জন। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের রাজাপুর স্বাস্থ্য কম্প্রেক্স, ঝালকাঠি ও বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের মদ্যে ৫জনের নাম পাওয়া গেছে। এরা হলো, পটুয়াখালী জেলার লেবুখালী গ্রামের মো. শাওন (৩৫) তার স্ত্রী ঝর্ণা (২২), আল মামুন (৪৫), আবুল কালাম (৩৫), বরিশালের এ্যাড. মুকুল রঞ্জন (২৭), কুলসুম (৩৫)।

আহতরা হলো শ্বতস্বতী (২৪), মুক্তা (৫০), মোবারক (৩০), মাইনুল (২৮), ফাতেমা (২৪), শাহ আলম (৫২), জুলফিকার (২৮), হানিফ (২৪), শিরিন (৩২), মেরিন (৩০), রুহুল আমীন (৪২), লাভলী (২২), আব্দুল হক (২৮), ইমরান (২৭), আব্দুর রহমান (২৪), আল মামুন (২৬), রেজাউল (৪২), সাইদুল (২৪), নওশের (৪৫), ইলিয়াছ (৩৮)।
রাজাপুর স্বাস্থ্য কম্প্রেক্স সূত্র ৮জনের মৃতের কথা নিশ্চিত করেছে। পরে রাত সাড়ে ৮টায় আর ২ জনের মরদেহ বাসের মধ্যে থেকে উদ্ধার করা হয়। বাসের উদ্ধারকাজ চলছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও রাাজপুর থানার ওসি (অপারেশন) জানান, বিকাল পৌনে চারটার দিকে খুলনা থেকে রূপম পরিবহনের একটি বাস বরিশালগামী রাজাপুরের বিশ্বাসবাড়ি এলাকায় আসলে বাসটির সামনের চাকা ফেটে যায়। বাসটি এসময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে বিশ্বাসবাড়ি খালের উপর নির্মানাধীন সেতুর সংযোগ সড়ক থেকে ছিটকে খালে পড়ে যায়। এতে বাসটি দুমরে মুচরে যায়। Jhalakathi Road Accident  News Photo(2)-4 23-12-2014

রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এতে ৭ নিহত হয়েছে বলে রাজাপুর উপজেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান নিশ্চিত করেছেন । খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ও তাদের উদ্ধার কর্মীরা, পুলিশ, র‌্যাব ও স্থানীয়রা উদ্ধার কাজে নেমে পড়ে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বাসটি উদ্ধারের জন্য ক্রেন এসে উপস্থিত হয়েছে। উদ্ধারকাজে র‌্যাব, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসসহ স্থানীয় মানুষ অংশ নেয়।

ঝালকাঠি-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব বিএইচ হারুন, জেলা প্রশাসক মো. শাখাওয়াত হোসেন, পুলিশ সুপার মো. মজিদ আলী, র‌্যাব, পুলিশ ফায়রা সার্ভিস বিভাগ সহ স্থানীয় প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করেন।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই