মেইন ম্যেনু

খাসজমির পরিমাণ নির্ধারণের তাগাদা ভূমিমন্ত্রীর

ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ সারাদেশের প্রকৃত ভূমিহীন ও নিষ্কন্টক খাসজমির প্রকৃত হিসাব দ্রুত মন্ত্রণালয়কে অবহিত জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার ভূমি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত ‘জাতীয় কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা নির্বাহী কমিটির ৩২তম সভা’য় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের এ নির্দেশ দেন।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমিহীনদের কৃষি খাসজমি বন্দোবস্ত প্রদানের জন্য ঘোষণা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীনের তালিকা প্রণয়ন করে তাদের মাঝে কৃষি খাস জমি ও গুচ্ছগ্রাম ও আশ্রয়ণের মাধ্যমে পুনর্বাসন কার্যক্রম চলছে।’

সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে পর্যাপ্ত খাস জমি রয়েছে। খতিয়ান নম্বর, দাগ নম্বর উল্লেখ করে আবেদনের জন্য নির্দেশনা রয়েছে। সাধারণ ভূমিহীন কৃষক দাগ নম্বর, খতিয়ান নম্বর বুঝে না বা সংগ্রহ করতে পারেন না। তাদেরকে অফিসের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয়। তহশিল অফিসে গিয়ে তারা নানা হয়রানির শিকার হওয়ার কিছু খবরাখবর আমাদের কাছে আছে।’

এসময় তিনি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিজ নিজ এলাকার খাস জমি ব্যক্তিগত উদ্যোগে তহশিল অফিস থেকে সংগ্রহ করে সর্বোচ্চ জনসেবায় কাজে লাগানোর পরামর্শ দেন। এছাড়াও মন্ত্রী খাসজমির হিসাব ও এর বাস্তব অবস্থা চাহিদা অনুযায়ী প্রদানের জন্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের আন্তরিক থাকার নির্দেশ দেন।

সভায় দেশে ৮ লাখ ৪৮ হাজার ৭২৬ একর কৃষি খাস জমি রয়েছে বলে জানানো হয়। এছাড়া খাস জমির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা, নদীতে জেগে ওঠা চরের জমি দ্রুত দিয়ারা জরিপ করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এসময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় সংসদ সদস্য আবদুর রাজ্জাক, আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন, অ্যাডভোকেট আবু জাহির, স্বপন ভট্টাচার্য্য, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম, ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুয়াজ্জেম হোসাইন, বিভাগীয় কমিশনার, পরিবেশ ও বন, স্বরাষ্ট্র, কৃষি, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।






মন্তব্য চালু নেই