মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার খবর

সাতক্ষীরায় ভারতের ডেপুটি হাই কমিশনার সন্দীপ চক্রবর্তী-
‘ভারত-বাংলাদেশ মিলে জঙ্গীদের মোকাবেলা করবে
সাতক্ষীরায় ভারতের ডেপুটি হাই কমিশনার শ্রী সন্দীপ চক্রবর্তী বলেন, “মহান মুক্তিযুদ্ধে সাতক্ষীরার ভূমিকা আমরা সবাই জানি। মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে ভারত-বাংলাদেশের যে সম্পর্ক ছিল তা সব সময় থাকবে। সাতক্ষীরাবাসী জঙ্গীদের বিরুদ্ধে লড়াই করে আজ সাতক্ষীরার যে শান্ত অবস্থা ফিরিয়ে এনেছে তা আমরা সবাই জানি। সারা বিশ্ব জুড়ে আজ বিরাট বড় জঙ্গীবাদের সৃষ্টি হয়েছে। ভারত জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে এবং ভারত-বাংলাদেশ মিলে জঙ্গীদের মোকাবেলা করবে এটাই আমাদের আশা। আমি সাতক্ষীরায় এসে এখানকার সৌন্দর্য ও উন্নয়ন দেখে খুব মুগ্ধ হয়েছি। ভারত-বাংলাদেশের সম্মন্ধ যেভাবে বেড়ে চলেছে তার মধ্যে সাতক্ষীরা একটা বিশেষ ভূমিকা আছে ও থাকবে। আমরা মনে করি, সাতক্ষীরা ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে একটি সেতু। সাতক্ষীরা নিবাসীরা ভারতের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা করে। সুতরাং আপনাদের জন্য ভোমরা স্থল বন্দরটি আরো আধুনিকায়ন করা হবে এবং ভারতীয় ভিসা পাওয়ায় ক্ষেত্রে ই-টোকেন পাওয়ার ব্যবস্থা আরো সহজ করা হবে। ভারতের অঙ্গিকার বা প্রতিশ্রুতি হলো-বাংলাদেশ যেন একটি উন্নত প্রগতিশীল রাষ্ট্রে পরিণত হয়। ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক আত্বীয়তার সম্পর্ক। বাংলাদেশ সারা বিশ্বের মধ্যে একটি প্রগতিশীল অসাম্প্রদায়িক উন্নত দেশে পরিণত হোক এটাই আমাদের কামনা। আমরা সকলে মিলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বন্ধ¡ত্বের সম্মন্ধ বজায় রেখে কাজ করে যাচ্ছি।” শনিবার সাতক্ষীরা শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অসাম্প্রদায়িক প্রগতিশীল সাতক্ষীরা গড়তে আমরা প্রস্তুত শীর্ষক গণসমাবেশে সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্রশাসক এম মুনসুর আহমেদের সভাপতিত্বে ভারতের ডেপুটি হাই কমিশনার শ্রী সন্দীপ চক্রবর্তী এসব কথা বলেন। ‘যুক্ত কর হে সবার সঙ্গে, মুক্ত করো হে বন্ধ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ‘বাংলাদেশ রুখে দাঁড়াও’ ইন্দ্রিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও যুব একাডেমী সাতক্ষীরা’র সৌজন্যে এ গণসমাবেশে সম্মানিত অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সদর ২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, সদর ১ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, সাতক্ষীরা ৪ আসনের সংসদ সদস্য সম জগলুল হায়দার, সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি মিসেস রিফাত আমিন। গণসমাবেশে প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সাংবাদিক আবেদ খান। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন নাসরিন খান লিপি।

সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী করদাতাদের সংবর্ধনা:
সাতক্ষীরা জেলায় ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে সর্বোচ্চ ও দীর্ঘ সময় কর প্রদানকারী করদাতাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। শনিবার বেলা ১২টায় সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্সের আয়োজনে চেম্বার ভবনে বর্নাঢ্য আয়োজনে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি নাসিম ফারুক খান মিঠু’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্রশাসক মুনসুর আহমেদ।

DSC06306

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র আলহাজ্ব এম.এ জলিল, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ ও দীর্ঘ সময় কর প্রদানকারী হিসাবে ৫ জনকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। সংবর্ধিত ব্যক্তিরা হলেন খন্দকার আলী হায়দায়, হারিচ খান চৌধুরী, আলহাজ্ব গোলাম রব্বানী, শেখ সিরাজুল হক, কল্যাণ বসু। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও চিকিৎসক আলহাজ্ব আবুল কালাম বাবলা, বড় বাজার মৎস্য ব্যাসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুর রব, ঝাউডাঙ্গা বাজার সমিতির সভাপতি আব্দুল হাই, জেলা রেস্তোরা মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল ইসলাম প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চেম্বার অব কমার্সের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মনিরুল ইসলাম মিনি।






মন্তব্য চালু নেই