মেইন ম্যেনু

৬৬ বছর পর ভারতের দখলে থাকা ৭৫ বিঘা জমি ফিরে পেল বাংলাদেশ

৬৬ বছর ধরে ভারতের দখলে থাকা চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের বেণীপুর সীমান্তের ৭৫ বিঘা জমি অবশেষে ফিরে পেল বাংলাদেশ। শনিবার বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) জমিগুলো উদ্ধার করে। ১৯৪৯ সাল থেকে ভারত দখলে রাখে জমিগুলো।

ভারতের সীমানগরের ১৭৩ বিএসএফ কমান্ড্যান্ট অনিল শর্মা ও বিজিবির পরিচালক এসএম মনিরুজ্জামানের মধ্যে চারমাস ধরে আলোচনার পর জমি উদ্ধার ও দখলে নেয়া হয়। এতে বেণীপুর গ্রামবাসী সন্তোষ প্রকাশ করে আলোচিত জমিতে সীমান্তহাট স্থাপনের দাবি জানান।

জমি উদ্ধারের পর শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় প্রেস বিফ্রিংয়ে বিজিবি ৬ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল এসএম মনিরুজ্জামান জানান, আলোচিত ৭৫ বিঘা জমি বাংলাদেশের হলেও ৬৬ বছর ধরে এগুলো ভারতের দখলে ছিল। প্রশাসনের কাছ থেকে বিস্তারিত তথ্য জানার পর বিজিবি বিএসএফের সঙ্গে আলোচনার পর জমি উদ্ধার করে দখলে নেয়া হয়। এসব জমির মধ্যে ৬৫ বিঘা খাসখতিয়ানভূক্ত ও ১০ বিঘা ব্যক্তি মালিকানাধীন। জমিগুলো ১৯৪৯ সাল থেকে ভারতের দখলে ছিল।

জীবননগরের বেণীপুর বৃত্তিপাড়ার মৃত ইমান আলীর ছেলে আবুল হোসেন (৭৩) জানান, ওই জমিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করতেন। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের পর তারা ভারতে চলে গেলে জমিটি খালি পড়ে থাকে। পরবর্তীর্তে এদেশের মানুষ সরিষা চাষ করে। এরপর ভারতীয়রা সরিষা কেটে নিয়ে যায়। ব্যক্তি মালিকানা ১০ বিঘা জমির মালিক হলেন, বেণীপুর বৃত্তিপাড়ার মৃত আফজাল মণ্ডল, মৃত শাহাবদ্দিন, গওহর মণ্ডল ও আবুল মণ্ডল।

বেণীপুর বৃত্তিপাড়ার ফজলুর রহমানের ছেলে লিটন কবীরের দাবি, ৭৫ বিঘা স্থানীয় ভূমিহীনদের মধ্যে বরাদ্দ দিলে তারা উপকৃত হবে।
বৃত্তিপাড়ার মৃত নবীসউদ্দিন মণ্ডলের ছেলে জামালউদ্দিন দাবি করেন, ওই জমিতে সীমান্তহাট চালু করা হলে দু’দেশের ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে।






মন্তব্য চালু নেই