মেইন ম্যেনু

১২ বছর বয়সীরা পাবে স্মার্টকার্ড

দেশের সকল নাগরিকের জাতীয় পরিচয়পত্রের আওতায় এনে ১২ বছর বয়সী নাগরিকদের আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর স্মার্টকার্ড দেওয়া শুরু করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি খসড়া প্রস্তাবনা প্রস্তুত করেছে ইসি সচিবালয়।

শনিবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সচিব সিরাজুল ইসলাম বলেন, আগামীতে ১২ বছর বয়সী নাগরিকদের থেকে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর স্মার্টকার্ড দেওয়া শুরু হবে। তাই এই কার্যক্রমকে সম্প্রসারিত করার চিন্তা করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে আগামী জুলাই থেকে ১৫ বছর বয়সী নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার লক্ষ্যে তথ্য সংগ্রহ শুরু হতে যাচ্ছে।

পরবর্তীকালে সব নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হবে। এরপর ১২ বছর বয়সী নাগরিকদের স্মার্টকার্ড এবং এর থেকে কম বয়সীদের দেওয়া হবে পেপার লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র, যা কমিশনের নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

কমিশন সূত্রে জানা যায়, আগামী জুলাই থেকে আগস্ট পর্যন্ত প্রথমবারের মতো ১৫ বছর বয়সী নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ শুরু করবে ইসি। একই সঙ্গে সর্বশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম থেকে বাদপড়াদের নাম তালিকার্ভুক্ত করা হবে এবং ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সী সব নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে। তাদের তথ্য সংগ্রহের সময় বয়স প্রমাণের জন্য শিক্ষার্থীদের উচ্চ মাধ্যমিকের রেজিস্ট্রেশন কার্ড আমলে নেওয়া হবে। আর তা না থাকলে জন্ম সনদও বিবেচ্য হবে।

এ সব নাগরিকেরা ১৮ পূর্ণ হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন এবং ভোট দিতে পারবেন। এসব তথ্য সংগ্রহের কাজ চলবে তিন ধাপে। প্রথম পর্যায়ে ১ জুলাই থেকে ১৫ অক্টোবর, দ্বিতীয় ধাপে ১ আগস্ট থেকে ১৪ আগস্ট এবং শেষে ধাপে ১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এতে ৭২ লাখ ১৫ হাজার নাগরিকের তথ্য সংগৃহীত হবে বলে ধারণা করছে নির্বাচন কমিশন।

আরো জানা যায়, পরবর্তীকালে শূন্য থেকে ১৫ বছরের কম বয়সী নাগরিকদেরও জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে ইসি। এতে প্রথম ভাগে শূন্য থেকে ছয় মাস, দ্বিতীয় ভাগে ছয় মাস থেকে ছয় বছর বয়স পর্যন্ত, এরপর ছয় বছর থেকে ১২ বছর বয়সীদের আওতায় আনা হবে। পর্যায়ক্রমে সব নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্রের আওতায় এনে ১২ বছর বয়সীদের স্মার্টকার্ড দেওয়া এবং এর কম বয়সীদের পেপার লেমিনেটেডযুক্ত জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই