মেইন ম্যেনু

ভারতীয় ট্রাক চালকদের ধর্মঘট

হিলিতে আমদানি-রপ্তানি ২য় দিনেও বন্ধ

ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকচালকদের ধর্মঘট অব্যাহত রয়েছে। এ কারণে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দুই দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। দেশে প্রবেশের অপেক্ষায় সহস্রাধিক পণ্যবোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে। এগুলোর মধ্যে প্রায় দু’শতাধিক পেঁয়াজবোঝাই ট্রাকও রয়েছে। পেঁয়াজ পঁচে যাওয়ায় ব্যবসায়ীরা মোটা অঙ্কের লোকসানের আশঙ্কা করছেন। এছাড়াও প্রতিদিন প্রায় কোটি টাকা রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

রোববার দুপুর দেড়টা থেকে দু-দেশের মধ্যে আমদানি রপ্তানি বানিজ্য বন্ধ হয়ে যায়। তবে দুপুর বারোটার দিকে ভারত থেকে ৩টি পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক বাংলাদেশে ট্রাক প্রবেশ করে। এর আগে সকালে বন্দরের ভেতর থেকে ভারতীয় খালি ট্রাকগুলো বন্দর ছেড়ে ভারতে চলে যায়। সোমবার ২য়দিনেও কোনো পণ্যবাহী ট্রাক বন্দরে না আসায় আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকে।

এদিকে বাংলাহিলি কাষ্টমস্ সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সচিব শাহিনুর ইসলাম জানান, অচলাবস্থা নিরসনে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট শূন্য রেখায় পানামা হিলি পোর্ট লিংকের প্রতিনিধি, বাংলাহিলি কাষ্টমস্ সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন ও ভারত হিলি এক্সপোর্ট অ্যান্ড কাষ্টমস্ ক্লিয়ারিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের বৈঠক চলছে। তবে বৈঠকে এখনো কোনো সিদ্ধান্তের কথা জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, গত বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাংলাদেশে পোর্টের ভেতরে ট্রাক চাপায় ভারতীয় ট্রাকের সহকারী চালক অতুল কুমার (১৭) নিহত হন। বৃহস্পতিবার সন্ধা সাড়ে ৭টায় হিলি সীমান্তের শূন্যরেখা দিয়ে হাকিমপুর থানা পুলিশের সহকারী পরিদর্শক জিল্লুর রহমান ভারত অংশের হিলি থানার সহকারী পরিদর্শক সুদিপ কুমার সাহার কাছে লাশ হস্তান্তর করেন। নিহতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেয়া হলেও তারা কোনো কিছুই না পাওয়ায় ভারতীয় ট্রাক চালকরা হিলি বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ করে দেন।

এরপর রোববার বিকাল ৫টার দিকে হিলি সীমান্তের পণ্য প্রবেশ গেট জিরোপয়েন্টে দুই দেশের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের বৈঠক হয়। বৈঠকে ভারতীয় ট্রাক চালক সমবায় সমিতির ৬দফা সম্বলিত একটি দাবিনামা পানামা হিলি পোর্ট কর্তৃপক্ষের বরাবর দেয়া হয়।

দাবিগুলো হচ্ছে-হিলি বন্দরের ভেতর থেকে ভারতীয় খালি ট্রাকগুলো সকাল ৭টার মধ্যে ছেড়ে দিতে হবে, আমদানি-রপ্তানি চলাকালে কোনো খালি ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করানো চলবেনা, সরকারী নিয়ম অনুযায়ি রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাকগুলি ৩দিনের মধ্যে খালি করে ভারতে পাঠাতে হবে, পানামা লিংক লিমিটেড কর্তক ভারতীয় গাড়ি প্রতি সরকারী রেটের চাইতে বেশি টাকা নেয়া বন্ধ করতে হবে, ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকচালক ও খালাসীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত এবং টয়লেটের বাবস্থা করতে হবে, পানামায় কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারীদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার ও শারীরিক অত্যাচার থেকে বিরত থাকবে হবে।

এসব দাবি রোববার ও সোমবারের মধ্যে পূরণ করা না হলে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের হুমকিও দেয়া হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই