মেইন ম্যেনু

হবিগঞ্জ সীমান্তের বনে বাংকার, রকেট লঞ্চারসহ বিপুল আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার

হবিগঞ্জ’র চুনারুঘাট উপজেলায় সাতছড়ি বনাঞ্চলে অভিযান চালিয়ে সাতটি বাংকার থেকে বিপুল সমরাস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এসবের মধ্যে রকেট লঞ্চার, ট্যাংক বিধ্বংসী বিস্ফোরক, মর্টারশেল, রকেট লঞ্চারের চার্জার, অয়েলসহ আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সীমান্ত এলাকা থেকে তিন কিলোমিটার দূরবর্তী সংরক্ষিত ওই বনে অভিযান শুরু করে র‌্যাব।

ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি গোষ্ঠী সীমান্ত পার হয়ে সাতছড়ি বনে অস্ত্রের মজুত গড়ে তুলছে- গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে রোববার রাত থেকেই অভিযানে নামে র‌্যাব-৯ ও ঢাকা র‌্যাবের প্রধান কার্যালয়।

অভিযানে সাতছড়ি এলাকার দুটি টিলার একটিতে দুটি ও অপরটিতে পাঁচটি বাংকারের (কূপ) সন্ধান পায় র‌্যাব। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত একটি বাংকার থেকে দুই শতাধিক রকেট লঞ্চার, শতাধিক মর্টারশেল, রকেট লঞ্চারের চার্জার, অয়েলসহ বিপুল সমাস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড উইং) উইং কমান্ডার হাবিবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে রোববার রাত থেকে সাতছড়ির গভীর অরণ্যে অভিযান চালানো হয়।

উইং কমান্ডার হাবিবুর আরো জানান, র‌্যাবের নেটওয়ার্ক সিগনালে ওই বাংকারগুলোতেও অস্ত্র থাকার সংকেত পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, ইতোমধ্যে এক তৃতীয়াংশ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। অস্ত্র পাওয়া সাপেক্ষে আরও দুইদিন ওই এলাকায় উদ্ধার অভিযান চলবে।

কারা বাংকারগুলোতে অস্ত্রের মজুদ করেছে- এ ব্যাপারে জানতে চাইলে র‌্যাবের এ কর্মকর্তা কিছু বলতে রাজি হননি। তদন্ত সাপেক্ষে বিস্তারিত বলা হবে বলে তিনি জানান।

সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে র‌্যাবের সহকারী মহাপরিচালক (এডিজি-অপারেশন) কর্নেল জিয়াউল আহসান ও র‌্যাব-৯ এর কমান্ডিং অফিসার মুফতি মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় সূত্র মতে, ওই এলাকায় এটিটিএফ নামে ভারতের নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনের ক্যাম্প ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২০০৩ সালের ২৭ জুন বগুড়ার কাহালু এলাকায় ট্রাকভর্তি গোলাবারুদ উদ্ধারের পর সাতছড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় সংগঠনের সদস্যরা।

সূত্র মতে, সাতছড়ি সংরক্ষিত বনাঞ্চলের একটি অংশে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত এলাকা। ওই এলাকার ওপারে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য। সীমান্ত পার হয়ে ওই বনে ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি গোষ্ঠী অস্ত্রের মজুত করছে- গোপনে এমন সংবাদ পেয়ে সন্ত্রাসীদের ঘাঁটির সন্ধান ও সদস্যদের ধরতে গত কয়েকদিন থেকেই তৎপর ছিল র‌্যাব। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সকালে গভীর বনে অভিযান চালায় র‌্যাব।






মন্তব্য চালু নেই