মেইন ম্যেনু

স্থানীয় সরকারকে অধিকতর ক্ষমতা ও দায়িত্ব দেয়া হবে : প্রধানমন্ত্রী

গ্রামগুলোকে উন্নয়নের কেন্দ্রবিন্দু করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আইশৃঙ্খলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্থানীয় সরকারকে অধিকতর ক্ষমতা দেয়া হবে।’ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে এসে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী সমবায়কে সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করতে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে সমবায়ের নাম করে কেউ যাতে প্রতারণা করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকতে বলেন।

তিনি বলেন, ‘গ্রামগুলোকে সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করতে হবে।’ তিনি জানান, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে ক্রমাগত বরাদ্দ বৃদ্দি করছে সরকার। তাই এ কর্মকাণ্ডের জন্য জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে কেন্দ্রীভূত প্রশাসনিক কাঠামো গণতান্ত্রিক পুনর্বিন্যাসের মাধ্যমে জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের কাছে অধিকতর ক্ষমতা ও দায়িত্ব অর্পণ করা হবে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আইনশৃঙ্খলা, অবকাঠামো উন্নয়ন, সামাজিক নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচি স্তর বিন্যাসের মাধ্যমে স্থানীয় সরকারের হাতে ন্যাস্ত করা হবে।’

তিনি জানান, সারাদেশের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ন ও শহরগুলোতে নাগরিক সবিধা বৃদ্ধি করাসহ সকলের জন্য আর্সেনিকমুক্ত নিরাপদ পানি ও প্রতি বাড়িতে স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। এছাড়া গ্রাম-ইউনিয়ন-উপজেলা সদরকে সড়ক নেটওয়ার্কে সংযুক্ত করার অঙ্গিকার রয়েছে বর্তমান সরকারের। এ অঙ্গিকার বাস্তবায়নে স্থানীয় সরকার ব্ভিাগকে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করার জন্য বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্থানীয় সরকারগুলোতে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের এক তৃতীয়াংশ নারী। ফলে নারীরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় সরাসরি সম্পৃক্ত হতে পারছে। এতে নারীর ক্ষমতায়ন হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোতে সরকার সামর্থ্য অনুযায়ী বরাদ্দ করছে। কিন্তু এ বরাদ্দ যথেষ্ট নয়। তাই স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিজস্ব আয় বৃদ্ধি করতে হবে।’

২০১৬-১৭ সালের মধ্যে সকল জনগোষ্ঠী নিরাপদ পানি সরবাহের আওতায় আসবে বলে আশা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে এক তৃতীয়াংশ জনগোষ্ঠী নগরবাসী। এ জনগোষ্ঠীকে সেবা প্রদানের জন্য সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলো কাজ করছে। কিন্তু সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে বিদ্যমান চাহিদা অনেক বেশি। তাই সিটি করপোরেশনগুলোতে আয় বৃদ্ধির উদ্যোগ নিতে হবে।’
এসময় স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



« (পূর্বের সংবাদ)
(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই